এ্যালান বোর্ডার, ছবি: সংগৃহীত।

অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ড ম্যাচে জয়-পরাজয় নির্ধারণ করবে বোলিং : এ্যালান বোর্ডার

লন্ডন, ২২ জুন, ২০১৯ : সাবেক কিংবদন্তী ক্রিকেটর এ্যালান বোর্ডোরের মতে চলতি বিশ্বকাপে আসন্ন ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচের জয়-পরাজয় নির্ধারণ করবে দুই দলের বোলিং। অস্ট্রেলিয়ার সাবেক এ অধিনায়ক বলেন, স্বাগতিক ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার ম্যাচে মূল ভূমিকা পালন করবে বোলিং এবং রাউন্ড রবীন লীগ পদ্ধতির এ টুর্নামেন্টে স্পিনার নাথান লিঁয়কে বর্তমান ্যাম্পিয়নদের একটা সুযোগ দেয়া উচিত।

চির সবুজ লাসিথ মালিঙ্গা ঝলকে গতকাল ইংল্যান্ডের বিপক্ষে শ্রীলংকা জয়ী হওয়ার পর পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে রয়েছে অস্ট্রেলিয়া। গত আসরের রানার্স আপ নিউজিল্যান্ড দ্বিতীয় এবং তৃতীয় স্থানে আছে স্বাগতিকরা।

১৯৮৭ বিশ্বকাপ ফাইনালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অস্ট্রেলিয়াকে জয় এনে দেয়া বোর্ডার বলেন, এ্যারন ফিঞ্চের নেতৃত্বাধীন দলটি বেশ ভালভাবে গড়ে উঠছে এবং আগামী মঙ্গলবার লর্ডসে চির প্রতিদ্বন্দ্বী দুই দেশের ক্রিকেট লড়াই দেখতে তার তর সইছে না।

আইসিসি মিডিয়াকে বোর্ডার বলেন, ‘সেমিফাইনালে যাওয়ার আগে এ ম্যাচে দারুন প্রতিদ্বন্দ্বীতা হবে এবং সঠিকভাবেই এমন ম্যাচে আফসালন দেখা যাবে।’

‘তারা কোথায় আছে সেটা মূল্যায়নে উভয় দলের জন্যই এটা খুব ভাল হবে। ইংল্যান্ড দারুন ক্রিকেট খেলছে এবং স্পস্ট ফেবারিট।
‘বোলিংয়ের মাধ্যমে জয় পরাজয় নির্ধারিত হবে। আক্রমণের মাধ্যমে মাঠে অবস্থান ধরে রাখা এবং ইংল্যান্ডকে চাপে রাখাটা হবে অস্ট্রেলিয়ার মূল বিষয়।’

‘উভয় দলেরই বড় রান সংগ্রহের ক্ষমতা আছে সুতরাং যারা এ সুযোগগুলো কাজে লাগাতে পারবে তারাই জিতবে।’

অস্ট্রেলিয়ার বাঁ-হাতি পেসার মিচেল স্টার্ক ১৫ উইকেট শিকার করে যৌথভাবে শীর্ষে অবস্থান করছে। তবে বোর্ডার মনে করছেন, এখন পর্যন্ত ব্যবহার না করা বোলার অফ স্পিনার লিঁয় পাঁচ বারের চ্যাম্পিয়নদের একটা বাড়তি সুযোগ এনে দিতে পারে।

তিনি আরো বলেন, ‘এখন পর্যন্ত পুরো ১০০ ওভারের খেলা হয়নি এবং আমার ছোট্ট একটি পরামর্শ হচ্ছে ‘আগামী দুই ম্যাচে নাথানকে পরীক্ষা করে দেখা’।

‘সে একজন উইকেট নেয়া বোলার এবং জানে কিভাবে ব্যাটসম্যানকে আউট করতে হয়। টেস্ট বোলিং অবশ্যই ভিন্ন ধর্মী। তবে লিঁয় একজন আক্রমনাত্মক বোলার, বলে অনেক বেশি রিভার্স সুয়িং পায়।’

‘এখনকার খেলোয়াড়দের মানসিকতা হচ্ছে প্রতিপক্ষ স্পিনারদের আক্রমন কর এবং এটা দুই দিকেই যেতে পারে। তবে আবার অপর দিক হচ্ছে এ টুর্নামেন্ট জিততে সম্ভবত আপনাকে বেশি আক্রমণাত্মক মনোভাবের খেলোয়াড় দরকার, যাতে আপনি প্রতিপক্ষকে আটকে রাখতে পারেন।’

লিঁয়কে পেছনে ফেলে ভারত ও বাংলাদেশের বিপক্ষে দুই ম্যাচে লেগ স্পিনার এডাম জাম্পাকে সুযোগ দেয়া হয়েছে। ভারতের বিপক্ষে ৫০ রান খরচ করেও ছিলেন উইকেট শূন্য।বাংলাদেশের বিপক্ষে ৬৮ রানে নিয়েছেন এক উইকেট।

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *