আইপিএল -২০২০ , ছবি: সংগৃহীত।

আইপিএল নিয়ে শোয়েবের খোচা

করোনাভাইরাসের কারনে আগামী অক্টোবর-নভেম্বরে টি-২০ বিশ্বকাপ স্থগিত করে দিয়েছে ক্রিকেটের প্রধান সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। এর আগে একই কারনে এশিয়া কাপও স্থগিত করে দিয়েছে এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল (এসিসি)।

করোনাভাইরাস প্রতিরোধ

করোনাভাইরাস প্রতিরোধ

অর্থাৎ, এশিয়া কাপ ও আইসিসির মত বড় দু’টি টুর্নামেন্টই স্থগিত হয়ে গেল। বিশ্বকাপ না হওয়ায়, আগামী সেপ্টেম্বরে আইপিএলের ১৩তম আসর আয়োজন করবে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)।

ভারতের করোনা পরিস্থিতি আইপিএল আয়োজনের জন্য উপযোগী নয়, তাই সংযুক্ত আরব আমিরাতে হবে এবারের আইপিএল। বিশ্বকাপ স্থগিত হওয়ার পরপরই ভারতীয় বোর্ডের পক্ষ থেকে এই ঘোষণা আসে। আইসিসির ঘোষণার অপেক্ষায় ছিল বিসিসিআই। কারন আইপিএল আয়োজনের জন্য মুখিয়ে ছিলো ভারত।

তবে এমনটা যে হবে, তা আগেই বলেছিলেন বলে জানান পাকিস্তানের স্পিড স্টার শোয়েব আখতার। আর বিশ্বকাপ ও এশিয়া কাপ বাদ হলেও, কোন সমস্যা নেই, তবে আইপিএল হতেই হবে বলে খোঁচা দিয়ে কথা বলেছেন শোয়েব।

পাকিস্তানের একটি টিভি চ্যানেলে শোয়েব বলেছেন, ‘এশিয়া কাপ তো অবশ্যই হতে পারত। এশিয়া কাপে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ দেখার ভালো সুযোগ ছিলো। এশিয়া কাপ না হওয়ার পেছনে অনেক কারণ আছে। কিন্তু তা বলতে চাই না। আবার টি-২০ বিশ্বকাপও হতে পারত। কিন্তু আমি আগেই বলেছি বিশ্বকাপ ও এশিয়া কাপ হবে না। কিন্তু আইপিএল হবে। কারন আইপিএলের ক্ষতি করা যাবে না। বিশ্বকাপ-এশিয়া কাপ নরকে যাক তবুও আইপিএল হতেই হবে।’

বিশ্বের অনেক খেলোয়াড়ই আইপিএল হবে জেনে উৎসাহি হয়েছেন। এ ব্যাপারে শোয়েব নেতিবাচক কথাই বলেন, ‘যারা আইপিএলে খেলতে পারবে, তারাই খুশী হয়েছে। কিন্তু যারা খেলতে পারবে না, তারা তো বিশ্বকাপ ও এশিয়া কাপ সব থেকেই বঞ্চিত হলো। আইপিএল আয়োজন করার জন্য আইসিসির বড় হাত ছিলো। আইসিসির উচিত ছিলো আরও সময় নিয়ে বিশ্বকাপ আয়োজন করা।’

করোনার কারণে সেপ্টেম্বরে অনুষ্ঠেয় এশিয়া কাপ এক বছর পিছিয়ে গেছে। বিশ্বকাপ টি-২০ও এক বছর পিছিয়েছে। যা হবে ২০২২ সালে। আর ২০২১ সালে ভারতেও হবে আরেকটি টি-২০ বিশ্বকাপ। ২০২৩ সালে ভারতের হবে ওয়ানডে বিশ্বকাপ।

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *