ছবি : আয়ারল্যান্ড বনাম ইংল্যান্ড।

ইংল্যান্ড-আয়ারল্যান্ড সিরিজ দিয়ে কাল শুরু বিশ্বকাপ সুপার লিগ

আগামীকাল তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রথমটিতে মুখোমুখি হচ্ছে স্বাগতিক ইংল্যান্ড ও আয়ারল্যান্ড। এই সিরিজ দিয়ে পথচাল শুরু হচ্ছে আইসিসি ওয়ানডে ক্রিকেট বিশ্বকাপ সুপার লিগের। এই সুপার লিগ দিয়েই ২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপের বাছাই প্রক্রিয়া শুরু হচ্ছে। সাউদাম্পটনের রোজ বোল-এ ইংল্যান্ড ও আয়ারল্যান্ড প্রথম ওয়ানডে শুরু হবে সন্ধ্যা ৭টায়।

করোনাভাইরাস প্রতিরোধ

করোনাভাইরাস প্রতিরোধ

প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসের কারনে গেল মার্চ থেকে বিশ্ব ক্রিড়াঙ্গন থমকে ছিলো। তবে গেল ৮ জুলাই থেকে পুনরায় মাঠে ফিরে ক্রিকেট। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট ম্যাচের আয়োজন করে স্বাগতিক ইংল্যান্ড। সাউদাম্পটনে অনুষ্ঠিত হয় সিরিজের প্রথম টেস্ট। এরপর ম্যানচেষ্টারে আরও দু’টি টেস্ট খেলে দু’দল। গতকাল শেষ হওয়া তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ ২-১ ব্যবধানে জিতে নেয় ইংল্যান্ড।

আরো পড়ুন – মরুদেশে আইপিএল হওয়ায় খুশী উইলিয়ামসন

১১৬ দিন পর টেস্ট ক্রিকেট দিয়ে মাঠে ফিরেছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট। এবার ফিরতে যাচ্ছে ওয়ানডে। নিজ মাঠে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে ওয়ানডে ক্রিকেটও কাল মাঠে ফিরছে। তবে এই সিরিজের গুরুত্বটা অন্য দিক দিয়ে।

এই সিরিজ দিয়ে চালু হচ্ছে আইসিসি ওয়ানডে সুপার লিগ। মূলত ২০২৩ সালে ভারতে ওয়ানডে বিশ্বকাপকে সামনে রেখেই এই সুপার লিগের নিয়ম চালু করেছে আইসিসি।

প্রথমবারের মত এই সুপার লিগে খেলবে ১৩টি দল। ১২টি টেস্ট খেলুড়ে দেশের সাথে অংশ নিবে ২০১৫-১৭ আইসিসি ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট লিগের বিজয়ী দল নেদারল্যান্ড। ২০২৩ বিশ্বকাপের আগে প্রতিটি দল আটটি করে সিরিজ খেলবে। চারটি নিজেদের মাঠে, চারটি প্রতিপক্ষের মাঠে। প্রতিটি সিরিজ হবে তিন ম্যাচের। এই লিগের শীর্ষ ৭টি দল সরাসরি অংশ নেবে ২০২৩ সালের ভারত বিশ্বকাপে।

তবে স্বাগতিক হবার সুবাদে বিশ্বকাপে সরাসরি খেলবে ভারত। সরাসরি বিশ্বকাপে উঠতে না পারা, পাঁচ দলসহ সহযোগী পাঁচ সদস্য দল খেলবে ২০২৩ বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে। সেখান থেকে মূল টুর্নামেন্টে সুযোগ পাবে দুই দল। মোট ১০ দলের অংশগ্রহণে হবে ২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপ।

গত মে মাসে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশের তিন ওয়ানডে দিয়ে এই লিগ শুরুর কথা ছিল। কিন্তু করোনার কারণে সেটি আর হয়ে উঠেনি।

তবে অবশেষে ইংল্যান্ড-আয়ারল্যান্ড সিরিজ দিয়ে মাঠে গড়াচ্ছে সুপার লীগ। করোনার প্রার্দুভাবের মাঝেও, টেস্ট দিয়ে ক্রিকেট মাঠে ফিরেছে ইংল্যান্ডে। এবার সেই ইংল্যান্ডেই ওয়ানডেও ফিরছে। তবে এমন সিরিজে ইংল্যান্ডের সেরা তারকারা থাকছেন না।

জো রুট, বেন স্টোকস, জশ বাটলার ও জোফরা আর্চারের মত তারকাদের বিশ্রামে রেখে সিরিজ শুরু করবে ইংল্যান্ড।

কারন গতকালই ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাথে টেস্ট সিরিজ শেষ করলো। আবার ৫ আগস্ট থেকে পাকিস্তানের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ শুরু করবে ইংল্যান্ড। এমন ব্যস্ত সূচির কারনেই দলের অভিজ্ঞদের বিশ্রাম দিয়ে, তারুন্যনির্ভর দল গড়েছে ইংলিশরা।

তবে দলের নেতৃত্বে থাকছেন নিয়মিত অধিনায়ক ইয়োইন মরগান। যার নেতৃত্বে গেল বছর নিজেদের মাটিতে ওয়ানডে বিশ্বকাপের ট্রফি জিতে ইংলিশরা। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের ভালো করার প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন মরগান। তিনি বলেন, ‘দীর্ঘদিন পর ক্রিকেটে ফিরছি। এটি খুবই ভালো খবর। মাঠে নামার জন্য খেলোয়াড়রা মুখিয়ে আছে। এবারের সিরিজটি ভিন্ন মাত্রার। করোনার মধ্যেও খেলতে নামা, আবার আইসিসির নতুন নিয়মের সিরিজ। তাই সিরিজ জয়ই, আমাদের প্রধান লক্ষ্য।

প্রথম ম্যাচ নিয়ে আমরা কিছুটা চিন্তিত। আশা করছি, মানিয়ে নিতে পারলে সমস্যা হবে না।’

ওয়ানডে সিরিজ খেলতে ২২ সদস্যের দল নিয়ে ইংল্যান্ডে পা রাখে আয়ারল্যান্ড। করোনার কারনে স্কোয়াডটি বড়। তবে প্রথম ওয়ানডেকে সামনে রেখে ১৪ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে আইরিশরা। প্রতি ম্যাচের আগে দল পরিবর্তন করতে পারবে আয়ারল্যান্ড।

প্রথম ওয়ানডের দলে জায়গা হয়নি ডান-হাতি পেসার মার্ক অ্যাডায়ারের। গোড়ালির অস্ত্রোপচারের পর এখন পুরোপুরি ফিট তিনি। তবে পরের ওয়ানডেগুলোতে সুযোগ পাবার সম্ভাবনা থাকছে। ২০১৯ সালে দলের সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি ছিলেন অ্যাডায়ারের।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ দিয়ে পুনরায় মাঠে ফিরতে পেরে খুশী আয়ারল্যান্ড অধিনায়ক অ্যান্ড্রু ব্যালবির্নি, ‘দীর্ঘদিন পর মাঠে ফিরতে পারবে জেনে, সকলেই খুশী। অপেক্ষার তর সইছে না সতীর্থদের। আশা করছি, সিরিজটি আমাদের জন্য ভালোই হবে।’

ইংল্যান্ড দল : ইয়োইন মরগান (অধিনায়ক), মঈন আলী (সহ-অধিনায়ক), জনি বেয়ারস্টো, টম ব্যান্টন, স্যাম বিলিংস, টম কারান, লিয়াম ডসন, জো ডেনলি, সাকিব মাহমুদ, আদিল রশিদ, জেসন রয়, রিস টপলি, জেমস ভিন্স এবং ডেভিড উইলি।

আয়ারল্যান্ড দল : অ্যান্ড্রু ব্যালবির্নি (অধিনায়ক), পল স্টার্লিং (সহ-অধিনায়ক), কার্টিস ক্যাম্পার, গ্যারেথ ডেলানি, জশ লিটল, অ্যান্ড্রু বেকব্রিন, ব্যারি ম্যাকার্থি, কেভিন ও’ব্রায়েন, উইলিয়াম পোর্টারফিল্ড, বয়েড র‌্যানকিন, সিমি সিং, হ্যারি টেকটর, লরসান টাকার ও ক্রেইগ ইয়ং।

ইংল্যান্ড-আয়ারল্যান্ড ওয়ানডে সিরিজের সূচি :

৩০ জুলাই : প্রথম ওয়ানডে
১ আগস্ট : দ্বিতীয় ওয়ানডে
৪ আগস্ট : তৃতীয় ওয়ানডে

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *