রোহিত শর্মা ,ছবিঃসংগৃহীত।

ওপেনার হিসেবে রোহিতের প্রথম সেঞ্চুরিতে উড়ন্ত শুরু ভারতের

বিশাখাপত্তম, ২ অক্টোবর, ২০১৯  : ওপেনার হিসেবে প্রথম টেস্ট খেলতে নেমেই চমক দেখালেন ভারতের ডন-হাতি ব্যাটসম্যান রোহিত শর্মাদক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আজ থেকে শুরু হওয়া সিরিজের প্রথম টেস্টের প্রথম দিনই সেঞ্চুরি করলেন রোহিত।

১৭৪ বলে অপরাজিত ১১৫ রান করেন তিনি। ওপেনার হিসেবে ইনিংস শুরু করা মায়াঙ্ক আগাওয়াল করেছেন অপরাজিত ৮৪ রান। দু’জনের অপরাজিত ইনিংসের কল্যাণে বিনা উইকেটে ২০২ রান তুলে বৃস্টির কারণে বাধ্য হয়ে স্থানীয় বেলা ৩টা ৩০ মিনিটে দিনের খেলা শেষ করতে হয় ভারতকে। বৃষ্টির কারণে প্রথম দিনের খেলা হয়েছে ৫৯ দশমিক ১ ওভার।

ওয়ানডেতে সর্বোচ্চ দু’টি ডাবল-সেঞ্চুরি, টি-২০ ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি ৪টি সেঞ্চুরি রয়েছে ভারতের বিধ্বংসী ওপেনার রোহিতের। অথচ ২৭ টেস্টে কোন ইনিংসে ওপেনার হিসেবে খেলতে পারেননি তিনি। তাই দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজ শুরুর আগ থেকে রোহিতকে দিয়ে টেস্টে ইনিংস শুরুর আলোচনার ঝড় উঠে। ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্টও তাতে সায় দেয়।

কিন্তু মূল পরীক্ষায় নামার আগে ভারতকে চিন্তায় ফেলে দিয়েছিলেন রোহিত। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে তিনদিনের প্রস্তুতি ম্যাচে ২ বলে শুন্য রান করে আউট হন তিনি।

তারপরও রোহিতের উপর আস্থা রেখেছিলো ভারত। এজন্য বিশাখাপতœমে সিরিজের প্রথম টেস্টেই রোহিতকে দিয়ে ইনিংস ওপেন করায় টিম ইন্ডিয়া। ভারত টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং বেছে নিলে আগারওয়ালের সাথে ইনিংস শুরু করেন রোহিত। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে বাউন্ডারি দিয়ে রানের খাতা খুলেন তিনি। এরপরই রক্ষণাত্মক হয়ে ওঠেন তিনি। উইকেটে সেট হবার জন্য বেশ সর্তকতার সাথে খেলছিলেন তিনি। ইনিংসের ১৯তম ওভার শেষে রোহিতের সংগ্রহ ছিলো ৪৭ বলে ১৯ রান। ২০তম ওভারে দক্ষিণ আফ্রিকার স্পিনার কেশব মহারাজকে প্রথম ছক্কা মারেন রোহিত। ছক্কার পর আবারো নিজেকে গুটিয়ে নেন তিনি।
রোহিতের ওপেনিং পার্টনার আগারওয়ালও বেশ রক্ষণাত্মক ছিলেন অন্য প্রান্তে। ২২ ওভার শেষে তার সংগ্রহ ছিলো ৭৮ বলে ৩২ রান। তবে আজকের প্রথম সেশনেই হাফ-সেঞ্চুরি তুলে নেন রোহিত। বাউন্ডারি মেরে টেস্ট ক্যারিয়ারের ১১তম হাফ-সেঞ্চুরির স্বাদ নেন তিনি। যার সুবাদে ৩০ ওভারে বিনা উইকেটে ৯১ রান তুলে প্রথম সেশন শেষ করে ভারত

দিনের দ্বিতীয় সেশনে টেস্ট ক্যারিয়ারের চতুর্থ হাফ-সেঞ্চুরি তুলে নেন পঞ্চম ম্যাচ খেলতে নামা আগারওয়ালও। এরপর উইকেটে টিকে থেকে দলের স্কোরকে শক্তপোক্ত করছিলেন রোহিত-আগাওয়াল। পাশাপাশি ব্যক্তিগত সংগ্রহও। ইনিংসের ৫০তম ওভারে দক্ষিণ আফ্রিকার অপ-স্পিনার ড্যান পিটকে চতুর্থ ও পঞ্চম বলে ছক্কা মেরে নব্বইয়ের ঘরে পৌঁছে যান রোহিত। তবে সেঞ্চুরি তুলে নিতে খুব বেশি সময়ক্ষেপন করেননি তিনি। ৫৪তম ওভারের শেষ বলে ১ রান নিয়ে বড় ফরম্যাটে চতুর্থ সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন রোহিত। ১৫৪তম বলে পাওয়া তার এই সেঞ্চুরিটি অনেক বেশি স্পেশাল। কারন ওপেনার হিসেবে প্রথম ইনিংসেই প্রথম সেঞ্চুরির স্বাদ নিলেন রোহিত।

সেঞ্চুরির পরও নিজের ইনিংসকে বড় করতে থাকেন রোহিত। অপরপ্রান্তে সেঞ্চুরির পথে এগুচ্ছেন আগারওয়াল। কিন্তু ৬০তম ওভারের প্রথম ডেলিভারির পর আকাশ অন্ধকারাচ্ছন্ন হয়ে ওঠায় আলোর স্বল্পতায় খেলা বন্ধ হয়ে যায়। আর তখনই চা-বিরতির ডাক দেন আম্পায়াররা। পরবর্তীতে বৃষ্টি নামলে এবং মাত্রা বেশি হওয়াতে প্রথম দিনের খেলার ইতি টানেন আম্পায়ারদ্বয়।

১২টি চার ও ৫টি ছক্কায় ১৭৪ বলে ১১৫ রানে অপরাজিত থেকে দিন শেষ করেন রোহিত। ১১টি চার ও ২টি ছক্কায় ১৮৩ বলে ৮৪ রানে অপরাজিত আছেন আগারওয়াল।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :
ভারত : ২০২/০ ৫৯.১ ওভার
রোহিত -১১৫*,
আগারওয়াল- ৮৪*

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *