মাহমাদুল্লাহ রিয়াদ ,ছবি: সংগৃহীত।

কোন চাপ অনুভব করছেন না মাহমাদুল্লাহ রিয়াদ

রাজকোট, ৬ নভেম্বর ২০১৯  : দ্বিপাক্ষিক তিন ম্যাচ টি-২০ সিরিজে ভারতের মাটিতে প্রথম কোন বিদেশী দল হিসেবে ভারতীয়দের হারিয়ে সিরিজ জয়ের মাধ্যমে ইতিহাস গড়ার ম্যাচে কোন চাপ অনুভব করছেননা বাংলাদেশ টি-২০ ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। তারা শুধু নিজেদের স্বাভাবিক খেলার প্রতিই মনোযোগী হতে চান।

তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজের প্রথম ম্যাচে স্বাগতিক ভারতকে ৭ উইকেটে হারিয়ে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছে বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ম্যাচে ওই জয়ের পুনরাবৃত্তি ঘটাতে পারলে ইতিহাসের পাতায় নাম লেখাতে পারবে টাইগাররা।

তবে সেটি নিয়ে আগে ভাগেই বেশী চিন্তা ভাবনা করে চাপ নিতে চাননা মাহমুদুল্লাহ। গুরুত্বপুর্ন ওই ম্যাচে চাপমুক্ত হয়েই খেলতে চান তিনি এবং তার দল। আজ বাংলাদেশ অধিনায়ক বলেন,‘ সত্যিকার অর্থে শুরু থেকেই আমাদের উপর বাড়তি কোন চাপ ছিলনা। প্রথমবার পুর্নাঙ্গ সিরিজ খেলতে ভারতে এসে আমাদের হারানোর কিছুই নেই। বরং এখান থেকে যা পাব তাই আমাদের লাভ। কালও বাংলাদেশ দলের জন্য ম্যাচ জয়ের আরেকটি সুযোগ।

শুরু থেকেই আমরা এই কথাটি বলে আসছি যে, হারি-জিতি আমাদের কাজ হচ্ছে ইতিবাচক ম্যাচ উপহার দেয়া। আমাদের মুল লক্ষ্য হচ্ছে সেটিই। তবে আমাদেরকে সঠিক ভাবেই খেলতে হবে। সেটি করতে পারলেই ম্যাচ জয়ের আরেকটি সুযোগ সৃস্টি হবে।’

রিয়াদ বলেন, ‘নিজেদের মাটিতে ভারত খুবই শক্তিশালী দল। গত ১১ /১২ বছর ধরে তারা সেটি প্রমান করে চলেছে। আমরা যদি তাদের বিপক্ষে জয় পাই, সেটি হবে আমাদের জন্য বিশাল অর্জন। আমাদের মুল মনোযোগ হচ্ছে ইতিবাচক ক্রিকেট খেলা, ম্যাচের সঙ্গে মানিয়ে নেয়া এবং সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্তটি নেয়া। প্রতিটি বিভাগকেই এ বিষয়ে সচেতন থাকতে হবে।’
এই প্রথম একটি পুর্নাঙ্গ দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলতে আমরা ভারত এসেছি। সুতরাং আমরা যদি এখানে সিরিজ জয় করতে পারি তাহলে সেটি হবে আমাদের জন্য একটি বিশাল অর্জন।’

এ সময় রিয়াদ পরিস্কার ভাষায় বলেন যে উইনিং কম্বিনেশন ভাঙ্গার সম্ভাবনা খুবই কম। তবে মাঠের কন্ডিশন দেখে যদি একান্তই একাদশ পরিবর্তনের প্রয়োজন পড়ে, তাহলে সেটি করা হবে। তবে এই মুহুর্তে উইনিং কম্বিনেশনের প্রতি বেশী মনোযোগী।

টাইগার দলপতি বলেন, ‘দিল্লির উইকেটের সঙ্গে যদি তুলনা করি তাহলে জানিনা কেমন উইকেটে আমরা খেলতে যাচ্ছি। তবে এখানকার গড় স্কোর ১৭০ থেকে ১৮০ রান। এজন্য হয়তো আমাদের গেম প্ল্যানের পরিবর্তন ঘটবে। তবে পরিস্থিতি ও কন্ডিশনের ভিত্তিতেই সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।’

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *