রোহিত শর্মা, ছবি: সংগৃহীত।

ক্রিকেটে বাংলাদেশের ‘ব্যাপক’ উন্নতির প্রশংসা করলেন রোহিত

ভারতের তারকা ওপেনার রোহিত শর্মা ম্যাচ জয়ে বাংলাদেশের তীব্র ক্ষুধার প্রশংসা করেছেন। তার মতে এই তীব্র ক্ষুধইি সমসাময়িক ক্রিকেটে বাংলাদেশকে বিশ্বের শীর্ষ দলগুলোর মধ্যে একটি করে তুলেছে।

কোরোনাভাইরাস প্রতিরোধ

কোরোনাভাইরাস প্রতিরোধ

একই সাথে বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের মধ্যে মানসিকতার ব্যাপক পরিবর্তন লক্ষ্য করেছেন রোহিত।

তিনি মনে করেন, পৃথিবীর যে প্রান্তেই খেলুক না কেন, বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা জয়ের জন্য ক্ষুর্ধাত থাকে। এমন বিষয় পাঁচ ছয় বছর আগে লক্ষনীয় ছিলো না।

গতকাল রাতে তামিমের ফেসবুক আড্ডায় এসে রোহিত বলেন, ‘তারা অনেক উন্নতি করেছে, যা সত্যি আশ্চর্যজনক। পাঁচ-ছয় বছর আগে যা ছিলো, এখন আর তেমন দল নয় তারা।’

তিনি আরও বলেন, ‘তাদের ভক্তরা-সমর্থকরা আরও প্রত্যাশা করে এবং বেশিরভাগ সময়, বাংলাদেশ দল প্রত্যাশা পূরণ করতে পারে। এটি এমন নয় যে, আমিই একমাত্র ব্যক্তি, এমন কথা বলছি, বরং সকলেই এমন বলছে।’

রোহিতের ভাষ্যে, বাংলাদেশের পরিসংখ্যানও প্রকাশ পেয়েছে। মাশরাফি বিন মর্তুজা অধিনায়ক হবার পর থেকেই বাংলাদেশের ক্রিকেটের উন্নতি হয়েছে, বিশ্ব ইভেন্টে বাংলাদেশের উন্নতি উর্ধ্বমুখী।

২০১৫ সালে প্রথমবারের মত বিশ্বকাপের কোয়ার্টারফাইনালে ওঠে বাংলাদেশ। বিশ্বকাপ শেষে দেশের মাটিতে টানা তিনটি সিরিজ জিতে বাংলাদেশের। বিশ্বের সেরা তিন দল পাকিস্তান-ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারায় তারা।

অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট ম্যাচও জিতে বাংলাদেশ। ২০১৭ আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনাল খেলে টাইগাররা।

ওয়ানডে ক্রিকেটে নিজেদের পারফরমেন্সে ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখে বাংলাদেশ। বিশ্বের সেরা দলগুলোকে হারায় তারা।

প্রথমবারের মত কোন টুর্নামেন্টের শিরোপাও জয় করে টাইগাররা। ২০১৯ বিশ্বকাপের আগে আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে শিরোপা জয় করে বাংলাদেশ।

২০১৯ বিশ্বকাপে শেষ চারে খেলার প্রত্যাশা নিয়ে মিশন শুরু করেছিলো বাংলাদেশ। শুরুটা চমৎকার হলেও, মাঝপথে এসে পথ হারায় বাংলাদেশ। ফলে ১০ দলের মধ্যে অষ্টম হয়ে বিশ্বকাপ শেষ করতে হয় বাংলাদেশকে।

তারপরও বিশ্বকাপে বাংলাদেশের পারফরমেন্সের প্রশংসা করলেন রোহিত। তিনি বলেন, ‘বিশ্বকাপে বাংলাদেশের পারফরমেন্স ভালো ছিলো। একই সাথে, এই সময়ে তারা যতগুলো টুর্নামেন্টে খেলেছে, ভালো পারফরমেন্স করেছে।’

ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে পাঁচটি ম্যাচ হেরেছিলো বাংলাদেশ। তবে প্রত্যকটি ম্যাচে দারুন লড়াই করেছে তারা।

ভারতের বিপক্ষে ম্যাচে জয়ের প্রত্যাশাই ছিলো বাংলাদেশের। কিন্তু রোহিত যখন ৯ রানে দাঁড়িয়ে তখন ক্যাচ ফেলেন তামিম।

জীবন পেয়ে ৯২ বলে ১০৪ রান করেন রোহিত। রোহিতের ব্যাটিং নৈপুন্যে শেষ পর্যন্ত ২৮ রানে ম্যাচ জিতে নেয় ভারত।

তামিমের ক্যাচ ড্রপ নিয়ে রোহিত বলেন, ‘যখন তুমি আমার ক্যাচ ফেলেছো, আমি এটি নিশ্চিত করেছি যে, আমি আর কোন ভুল করবো না। এরপর আমি সাবধান হয়েছি এবং পরে সেঞ্চুরি আদায় করে নিয়েছি।’

বাংলাদেশের বিপক্ষে ১৪ ম্যাচ খেলে পাঁচটি সেঞ্চুরি করেছেন রোহিত। বাংলাদেশের বিপক্ষে তার ব্যাট সবসময় জ্বলে উঠে।
এক পর্যায়ে রোহিতকে তামিম জিজ্ঞাসা করেন, ‘বাংলাদেশের মানুষ তাকে পছন্দ করে কিন্তু তুমি আমাদের সাথে এমন কেন করো, আমরা এটি পছন্দ করি না।’

কিন্তু রোহিত প্রশ্নটি বুঝতে পারেননি। বাংলাদেশের বিপক্ষে রোহিতের রেকর্ড মনে করিয়ে দেন তামিম।

মুচকি হেসে রোহিত বলেন, ‘সকলেই ম্যাচ জিততে চায়। সকলেই দলের জন্য তার সেরাটা দিতে চায়। আমিও এর ব্যতিক্রম নই।’

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *