ভারত-নিউজিল্যান্ড-টেস্ট-ম্যাচ-২০২০, ছবি: টুইটার।

জেমিসনের বোলিং তোপে প্রথম দিনই কুপোকাত ভারত

ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় টেস্ট খেলতে নেমেই পাঁচ উইকেট শিকারের স্বাদ পেলেন নিউজিল্যান্ডের ডান-হাতি পেসার কাইল জেমিসন। ক্রাইস্টচার্চে আজ থেকে শুরু হওয়া সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টের প্রথম দিন জেমিসনের আগুন ঝড়ানো বোলিং-এ ২৪২ রানে অলআউট সফরকারী ভারত। ১৪ ওভারে ৪৫ রানে ৫ উইকেট নেন জেমিসন। জবাবে দিন শেষে বিনা উইকেটে ৬৩ রান করেছে নিউজিল্যান্ড। ফলে ১০ উইকেট হাতে নিয়ে ১৭৯ রানে পিছিয়ে কিউইরা।

ক্রাইস্টচার্চে টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিং বেছে নেয় নিউজিল্যান্ড। ব্যাট হাতে মারমুখী মেজাজে শুরু করেন ওপেনার পৃথ্বী শ। প্রথম পাঁচ ওভারেই চারটি চার মারেন তিনি। ষষ্ঠ ওভারের প্রথম বলে নিজের প্রথম চার মারেন আরেক ওপেনার মায়াঙ্ক আগারওয়াল। কিন্তু ঐ ওভারের চতুর্থ বলে ট্রেন্ট বোল্টের বলে লেগ বিফোর হন আগারওয়াল। আউট হওয়ার আগে ৭ রান করেন তিনি।

দলীয় ৩০ রানে প্রথম উইকেট পতনের পর ক্রিজে পৃথ্বীর সঙ্গী হন তিন নম্বরে নামা চেতেশ্বর পূজারা। আজও ধীরলয়ে শুরু করেন পূজারা। তবে রানের চাকা সচল রাখায় মনোযোগি ছিলেন পৃথ্বী। ছক্কা মেওে মোকাবেলা করা ৬১তম বলেই টেস্ট ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় হাফ-সেঞ্চুরির স্বাদ নেন তিনি।

হাফ-সেঞ্চুরির পর নিজের ইনিংসটি বড় করতে পারেননি পৃথ্বী। জেমিসনের প্রথম শিকার হন তিনি। ৮টি চার ও ১টি ছক্কায় ৬৪ বলে ৫৪ রান করেন পৃথ্বী।

পৃথ্বীর বিদায়ে ক্রিজে আসেন রান ক্ষুধায় থাকায় ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। কিন্তু এবারও ব্যর্থ কোহলি। আবারো নিউজিল্যান্ডের পেসার টিম সাউদির বলে আউট হন তিনি। মাত্র ৩ রান করেন কোহলি।

কোহলির মত ব্যর্থ হয়েছেন আজিঙ্কা রাহানেও। সাউদির দ্বিতীয় শিকারের আগে ৭ রানে থামেন তিনি। এমন অবস্থায় ১১৩ রানে ৪ উইকেট হারায় ভারত।

এরপর দলকে খেলায় ফেরানোর চেষ্টা করেন পূজারা ও হনুমা বিহারি। পঞ্চম উইকেটে ৮১ রানের জুটি গড়ে ভারতকে চাপমুক্ত করেছিলেন পূজারা ও বিহারি। দু’জনে দলের স্কোর ২শর কাছাকাছি নিয়েও যান। কিন্তু টেস্ট ক্যারিয়ারের চতুর্থ হাফ-সেঞ্চুরির স্বাদ নেয়া বিহারিকে শিকার করে জমে যাওয়া জুটি ভাঙ্গেন নিউজিল্যান্ডের পেসার নিল ওয়াগনার। ১০টি চারে ৭০ বলে ৫৫ রান করেন বিহারি।

বিহারির পরপরই বিদায় নিতে হয় পূজারাকেও। জেমিসনের দ্বিতীয় শিকার হয়ে ৫৪ রানে থামেন তিনি। তার ১৪০ বলের ইনিংসে ৬টি চার ছিলো।

দলীয় ১৯৭ রানের মধ্যে পঞ্চম ও ষষ্ঠ ব্যাটসম্যান হিসেবে তাদের বিদায়ে দ্রুত গুটিয়ে যাবার শংকায় পড়ে ভারত। শেষ পর্যন্ত তা-ই হয়েছে। ভারতের লোয়ার-অর্ডারে জেমিসনের ৩ ও বোল্টের ১ উইকেট শিকারে ২৪২ রানেই অলআউট হয় ভারত। রবীচন্দ্রন অশ্বিনের পরিবর্তে খেলতে নামা রবীন্দ্র জাদেজাকে শিকার করে নিজের পাঁচ উইকেট পূর্ণ করেন জেমিসন। গত টেস্টে অভিষেক হওয়া জেমিসন প্রথম ইনিংসে ৪ উইকেট নিয়েছিলেন।
নিউজিল্যান্ডের পক্ষে সাউদি ও বোল্ট ২টি করে উইকেট নেন।

ভারতের ইনিংস শেষে দিনের শেষভাগে ২৩ ওভার ব্যাট করার সুযোগ পায় নিউজিল্যান্ড। ভারতীয় বোলারদের বিপক্ষে প্রতিরোধ গড়ে দিন শেষে অবিচ্ছিন্ন নিউজিল্যান্ডের দুই ওপেনার টম লাথাম ও টম ব্লানডেল। লাথাম ২৭ ও ব্লানডেল ২৯ রানে অপরাজিত আছেন।

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *