বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট দল , ছবি: আইসিসি।

জয় দিয়ে বিশ্বকাপ শুরু করতে চায় বাংলাদেশ যুবারা

পচেফস্ট্রম, ১৭ জানুয়ারি ২০২০  : দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে আগামীকাল নিজেদের বিশ্বকাপ মিশন শুরু করছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট দল। ‘সি’ গ্রুপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ জিম্বাবুয়ে। জয় দিয়ে বিশ্বকাপ শুরুর লক্ষ্য বাংলাদেশের যুবাদের। পচেফস্ট্রম বাংলাদেশ সময় দুপুর ২টায় শুরু হবে ম্যাচটি।

ত্রয়োদশ আসরের মূল লড়াইড়ে নামার আগে দু’টি আনুষ্ঠানিক প্রস্তুতিমূলক ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচে শক্তিশালী অস্ট্রেলিয়ার সাথে টাই করে আকবরের দল। তবে দ্বিতীয় ও শেষ প্রস্তুতি ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের কাছে ৪ উইকেটে হেরে যায় বাংলাদেশ। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ১১২ রানে অলআউট হয়েও প্রতিপক্ষের সাথে লড়াই করে হারে টাইগার যুবারা।

বিশ্বকাপের কোন আসরের ফাইনাল খেলতে পারেনি বাংলাদেশের যুবারা। অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেটে বাংলাদেশের সেরা সাফল্য তৃতীয় স্থান লাভ করা।

২০১৬ সালের আসরে ‘এ’ গ্রুপে ৩ ম্যাচের সবক’টিতেই জয় পায় বাংলাদেশ। তাই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে সুপার লিগে খেলতে নামে তারা। সুপার লিগে কোয়ার্টারফাইনালে জিতলেও, সেমিফাইনালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে ৩ উইকেটে হেরে যায় বাংলাদেশ।

তবে এবারের আসরের ফাইনালে খেলার লক্ষ্য বাংলাদেশের। এমনই ইঙ্গিত বাংলাদেশের অধিনায়ক আকবর আলি জানিয়েছেন, ‘আমাদের দলটি বেশ ভারসাম্যপূর্ণ। ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং, তিন বিভাগই ভালো অবস্থায় আছি আমরা। আমাদের দলের সবাই খুবই প্রতিভাবান। আমরা যদি সামর্থ্য অনুযায়ী খেলতে পারি, তাহলে আমরা টুর্নামেন্টের শেষ পর্যন্ত যেতে পারব।’

১৯৯৮ সালে যুব বিশ্বকাপে প্রথম খেলতে নামে বাংলাদেশ। এখন পর্যন্ত ১১টি আসরে অংশ নিয়ে সর্বমোট ৭০টি ম্যাচ খেলেছে তারা। এরমধ্যে ৪৮টিতে জয়, ২০টিতে হার ও ১টি করে ম্যাচ পরিত্যক্ত-টাই হয়। তাই বাংলাদেশের জয়-হার ৭০ দশমিক ২৮ শতাংশ। বাংলাদেশের মত ৭০ শতাংশের ঘরে রয়েছে- ভারত, অস্ট্রেলিয়া, পাকিস্তান ও দক্ষিণ আফ্রিকার।

যুব বিশ্বকাপ খেলতে গত ৩ জানুয়ারি ঢাকা ছাড়ে বাংলাদেশ দল। কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে পচেফস্ট্রুমে সাতদিনের ক্যাম্প করে তারা। ক্যাম্প শেষে দু’টি প্রস্তুতিমূলক ম্যাচে নিজেদের ভালোভাবেই ঝালিয়ে নিয়েছে বাংলাদেশ। এক সংবাদ সম্মেলনে আকবর বলেন, ‘এখানে খেলতে পেরে ভালো লাগছে। আমি মনে করি, বিশ্বকে আমাদের দক্ষতা দেখানোর এটি দারুণ সুযোগ। আমরা ভালো প্রস্তুতি নিয়েছি। এখন মুখিয়ে আছি এই বৈশ্বিক আসরে খেলার জন্য। ছেলেরা বিশ্বকাপ খেলার জন্য বেশ রোমাঞ্চিত হয়ে আছে।’

বাংলাদেশের গ্রæপে জিম্বাবুয়ে ছাড়াও রয়েছে স্কটল্যান্ড ও পাকিস্তান। জিম্বাবুয়ের পর ২১ ও ২৪ জানুয়ারি যথাক্রমে স্কটল্যান্ড ও পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলতে নামবে বাংলাদেশ। তবে প্রথম ম্যাচ নিয়েই বেশি ভাবনা আকবরের। ম্যাচ বাই ম্যাচ ধরে খেলার কথা বললেন তিনি, ‘জিম্বাবুয়ে ভালো দল। আমরা তাদের সর্বশেষ সিরিজটি দেখেছি। তাদের হারাতে হলে আমাদের সেরা খেলাটাই খেলতে হবে। তবে আমরা ম্যাচ বাই ম্যাচ ধরে এগোতে চাই।’

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *