ডেভিড ওয়ার্নার , ছবিঃ সংগৃহীত।

টি-২০ ক্রিকেট থেকে অবসর নেয়ার কথা ভাবছেন ওয়ার্নার

ওয়ানডে ও টেস্ট ক্যারিয়ারতে দীর্ঘায়িত করার লক্ষ্যে টি-২০ ক্রিকেট থেকে বিদায় নেয়ার কথা ভাবচেন অস্ট্রেলিয়ার মারকুটে ওপেনার বাঁ-হাতি ডেভিড ওয়ার্নার। এ বছর নিজ মাঠে এবং আগামী বছর ভারতের মাটিতে পর পর দুই বছর দুটি টি-২০ বিশ্বকাপ শেষে সংক্ষিপ্ত ভার্সন থেকে অবসর নেয়ার কথা বিবেচনা করছেন তিনি। একদিন আগে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সম্মান এ্যালাম বোর্ডার পদক জয় করেন তিনি। তৃতীয়বারের মত এ পুরস্কার পাবেন তা নিজেও ভাবতে পারেননি ওয়ার্নার।

তিনি বলেন,‘ আপনি যদি আন্তর্জাতিক টি-২০ ক্রিককেট লক্ষ্য করেন দেখবেন পর পর দুই বছর দুটি বিশ্বকাপ সামনে রয়েছে। সম্ভবত এ ভার্সনটিই আমি কয়েক বছরের মধ্যে খেলা বাদ দেব।’

বল-বিকৃতির কারনে নিষেধাজ্ঞা থেকে ফিরে ব্যাট হাতে নিজেদের সেরা দিয়েছেন ওয়ার্নার। অবশ্য তিনি নিজেও ভাবতে পারেননি আবারো ব্যাট হাতে এতটা দুর্ধষ হয়ে উঠবেন। তবে নিজের প্রতি প্রতিশ্রæতিবদ্ধ ছিলেন ওয়ার্নার। আত্মবিশ্বাস তাকে বিধ্বংসী রুপে ফিরিয়ে আনে ক্রিকেটে। ইংল্যান্ডে ওয়ানডে বিশ্বকাপে ৬৪৭ রান আসে ওয়ার্নারের ব্যাট থেকে। শুধুমাত্র ওয়ানডেতেই নয়, পরবর্তীতে টেস্ট ও টি-২০তে নিজের জাত চিনিয়েছেন ওয়ার্নার। তবে তিন ফরম্যাটের ব্যস্ত সূচি নিয়ে চিন্তায় পড়ে গেছেন এই বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান। তাই টি-২০ ক্রিকেটকে ছেড়ে দেয়ার চিন্তা-ভাবনা করছেন ওয়ার্নার।

ক্রিকইনফোকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ওয়ার্নার বলেন,‘ আমাকে সুচি দেখতে হবে; তিন ফর্মেটে খেলা চালিয়ে যাওয়া আমার জন্য খুবই কঠিন হবে এবং যারা সব ফর্মেটেই খেলা চালিয়ে যেতে চায় তাদের প্রতি শুভ কামনা। আপনি এবি ডি ভিলিয়ার্স, বীরেন্দার শেবাগদের দেখুন তারা দীর্ঘ সময় টি-২০ খেলেনি। এটা একটা চ্যালেঞ্জিং বিষয়।’

তিনি আরো বলেন,‘ আমার বাড়িতে তিন সন্তান এবং স্ত্রী রয়েছে, ধারাবাহিকভাবে ভ্রমন করাটা আমার জন্য খুবই কঠিন। যদি একটি ভার্সন বাদ দেয়া কথা বলা হয়, আমি সম্ভবত আন্তর্জাতিক টি-২০ বাদ দেব।’

অস্ট্রেলিয়ার হয়ে এ পর্যন্ত ৭৬ টি-২০ ম্যাচে একটি সেঞ্চুরি ও ১৫ হাফ সেঞ্চুরিসহ ২০৭৯ রান করেছেন ওয়ার্নার।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ঠাসা সূচি থাকায় অস্ট্রেলিয়ার ঘরোয়া আসর বিগ ব্যাশ টি-২০ লিগের সর্বশেষ আসর থেকে সড়ে দাঁড়ান ওয়ার্নার। শারীরিক ও মানসিকভাবে শক্ত থাকতেই এমন সিদ্বান্ত নেন তিনি, ‘এ বার আমি বিগ ব্যাশ খেলিনি। পরবর্তী সিরিজের জন্য নিজের মন ও শরীরকে সতেজ রাখার জন্যই বিগ ব্যাশ থেকে সড়ে দাড়াই। তবে ভবিষ্যতে বিগ ব্যাশ খেলার চিন্তা করবো।’

বিশ্বকাপে দুর্দান্ত খেলার পরও ফাইনালে যেতে না পারায় হতাশ হন ওয়ার্নার। তবে অ্যাশেজ ধরে রাখাকে বড় প্রাপ্তি হিসেবে দেখছেন তিনি।

ব্যক্তিগতভাবে পারফরমেন্স করতে না পারায় ক্ষমাপ্রার্থী ওয়ার্নার, ‘বিশ্বকাপের ফাইনালে পৌঁছাতে না পেরে আমরা হতাশ হয়েছি। তবে অ্যাশেজ ধরে রাখাটা ছিল দারুণ কৃতিত্বের। অ্যাশেজে আমি সাফল্য পাইনি, এজন্য আমি ক্ষমাপ্রার্থী। তবে মাঠে ফেরার জন্য আমি সব সময় মুখিয়ে ছিলাম। রান পাওয়ার জন্য ক্ষুধার্ত ছিলাম। ক্রিকেট থেকে দূরে থাকাটা অনেক বেশি যন্ত্রনার ছিলো। সেখান থেকে ফিরে আসতে পেরে ভাল লাগছে।’

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *