ছবি : বাংলাদেশ ক্রিকেট লীগ (বিসিএল )

নর্থ জোনের বিপক্ষে এগিয়ে সেন্ট্রাল জোন

বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের (বিসিএল) দ্বিতীয় রাউন্ডের দ্বিতীয় দিন শেষে নর্থ জোনের বিপক্ষে এগিয়ে সেন্ট্রাল জোন। নর্থ জোনের বিপক্ষে ৫ উইকেট হাতে নিয়ে ১৯১ রানে এগিয়ে রয়েছে তারা। পেসার তাসকিন আহমেদের বোলিং তোপে প্রথম দিনই ১৭০ রানেই গুটিয়ে যায় সেন্ট্রাল জোন। ১৪ ওভার বল করে ৫৪ রানে ৫ উইকেট নেন তাসকিন। জবাবে দিন শেষে ব্যাট হাতে নেমে ৩ উইকেটে ৮৯ রান করেছিলো নর্থ জোন। ৭ উইকেট হাতে নিয়ে ৮১ রানে পিছিয়ে ছিলো তারা। দ্বিতীয় দিন সেন্ট্রাল জোনের মুস্তাফিজুর রহমানের ৪ উইকেট শিকারে ১৬৬ রানে অলআউট হয় নর্থ জোন। ফলে প্রথম ইনিংস থেকে ৪ রানের লিড পায় সেন্ট্রাল জোন। এই লিডকে সাথে নিয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে খেলতে নেমে ৫ উইকেটে ১৮৭ রান করেছে সেন্ট্রাল জোন।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে প্রথম দিন শেষে নর্থ জোনের পক্ষে অধিনায়ক নাইম ইসলাম ১৮ ও বাংলাদেশের সাবেক অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম ১ রানে অপরাজিত ছিলেন। মুশফিক ২ রানের বেশি করতে পারেননি। তাকে বোল্ড করেন মুস্তাফিজুর। ২২ রানে নাইমকে থামান আরেক পেসার শহিদুল ইসলাম। আরেক মিডল-অর্ডার ব্যাটসম্যান তানবীর হায়দায় ৫ রানে বিদায় নেন। ফলে ১০১ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে নর্থ জোন।

তবে টেল-এন্ডারদের নিয়ে দলকে খেলায় ফেরানোর চেষ্টা করেন সাত নম্বরে নামা আরিফুল হক। ৭৮ বলে তার ৫০ রানের সুবাদেই সেন্ট্রাল জোনের সংগ্রহের কাছাকাছি যেতে পারে নর্থ জোন। শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আরিফুলের বিদায় নিশ্চিত করেন সেন্ট্রাল জোনের স্পিনার আরাফাত সানি।

তাই ১৬৬ রানে অলআউট হয় নর্থ জোন। সেন্ট্রাল জোনের মুস্তাাফিজ ৬৮ রানে ৪ উইকেট নেন। আরাফাত সানি ১০ রানে ২ উইকেট নেন।

৪ রানের লিডকে সাথে নিয়ে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে দ্বিতীয় বলে ওপেনার মোহাম্মদ নাইমকে হারায় সেন্ট্রাল জোন। প্রথম ইনিংসের মত এবারও খালি হাতে ফিরেন নাইম। এবার তাকে বিদায় দেন তাসকিন। এরপর দলীয় ৫০ রানের মধ্যে বিদায় নেন আরেক ওপেনার মার্শাল আইয়ুব ও রকিবুল হাসান। মার্শাল ১১ ও রকিবুল ২৭ রান করেন।

শুরুর ধাক্কাটা পরবর্তীতে কাটিয়ে উঠেন আব্দুল মজিদ ও তাইবুর রহমান। ৮৯ রানের জুটি গড়েন তারা। মজিদ হাফ-সেঞ্চুরির স্বাদ নিলেও ৪৭ রানে থামেন তাইবুর। হাফ-সেঞ্চুরির পর ব্যক্তিগত ৬৯ রানে তাসকিনের দ্বিতীয় শিকার হন মজিদ।

মজিদ-তাইবুরের বিদায়ের পর অপরাজিত থেকে দিন শেষ করেন অধিনায়ক শুভাগত হোম ও উইকেটরক্ষক জাকের আলি। শুভাগত ২৮ ও জাকের শুন্য রানে অপরাজিত আছেন। নর্থ জোনের তাসকিন ৪৬ রানে ২ উইকেট নিয়েছেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

সেন্ট্রাল জোন : ১৭০ ও ১৮৭/৫, ৫১.৩ ওভার

মজিদ- ৬৯
তাইবুর- ৪৭
তাসকিন -২/৪৬

নর্থ জোন : ১৬৬/১০, ৬৩.৪ ওভার

আরিফুল- ৫০
জুনায়েদ- ৪৭
মুস্তাফিজ -৪/৬৮

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *