ডিন জোন্স, ছবিঃসংগৃহীত।

নিউজিল্যান্ডে বিশ্বকাপ আয়োজনের পরামর্শ দিলেন জোন্স

করোনাভাইরাসের কারনে হুমকির মুখে আগামী অক্টোবর-নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়ার টি-২০ বিশ্বকাপ। আয়োজক অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ড থেকেও বলা হয়েছে, ঐ সময়ে বিশ্বকাপ আয়োজন কঠিন ও ঝুঁকি। ক্রিকেটের প্রধান সংস্থা আইসিসি, আগামী বিশ্বকাপ নিয়ে এখনো মুখে তালা এটে আছে। এবার অস্ট্রেলিয়ারই সাবেক খেলোয়াড় ও কোচ ডিন জোন্সও মানছেন, নিজ দেশে টি-২০ বিশ্বকাপ ঝুঁকির মধ্যে আছে। তাই অস্ট্রেলিয়ার পরিবর্তে নিউজিল্যান্ডে বিশ্বকাপ আয়োজনের পরামর্শ দিলেন জোন্স।

করোনাভাইরাস প্রতিরোধ

করোনাভাইরাস প্রতিরোধ

স্পোটর্সস্কিন ইউটিউব চ্যানেলে তিনি বলেন, ‘অনেক কারনেই এ বছর অস্ট্রেলিয়ায় টি-২০ বিশ্বকাপ হতে পারে না। কারন এখনো করোনাভাইরাসের ঝুঁিক আছে। এছাড়া বোর্ডও মনে করছে, বর্তমান পরিস্থিতিতে এবারের বিশ্বকাপ আয়োজন কঠিন।’

অস্ট্রেলিয়ার বিশ্বকাপ সরিয়ে নিউজিল্যান্ডে আয়োজনের পরামর্শ দিয়ে জোন্স বলেন, ‘অস্ট্রেলিয়া থেকে সরিয়ে তা নিউজিল্যান্ডে আয়োজন করা যেতে পারে। কারন সেখানে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে। ধীরে ধীরে তারা স্বাভাবিক জীবনে ফিরছে। গত ১২ দিনে নিউজিল্যান্ডে করোনাভাইরাসে কেউ আক্রান্ত হয়নি এবং বর্তমানে মাত্র একজন আক্রান্ত আছে। তাই নিউজিল্যান্ডের পরিস্থিতি অন্যান্য দেশের তুলনায় বেশ ভালো। সেখানে বিশ্বকাপ আয়োজন চিন্তা করা যেতে পারে।’

নিউজিল্যান্ডের মন্ত্রিসভা আগামী সোমবার বৈঠক করবে, সর্তকতামূলক ব্যবস্থা-১এ যাওয়া যায় কি-না। এই নিয়ে ইতোমধ্যে বিবৃতি দিয়েছেন নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাচিন্দা আর্ডারন। তিনি বলেন, ‘যদি ও কেবলমাত্র, আগামী দিনে কোন সংক্রমন না ঘটে, তবে আগামী সপ্তাহে নিউজিল্যান্ডে সর্তকতা স্তর-১এ যাওয়া যেতে পারে।’

এ ব্যাপারে টুইটারে জোন্স টুইট করে বলেন, ‘আর্ডারন বলেছেন, আগামী সপ্তাহে সর্তকতা স্তর-১ যাওয়া যেতে পারে। যার অর্থ, সকল সামাজিক দূরত্ব ব্যবস্থা ও জনসমাবেশের উপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হবে। তিনি বলেছেন, হয়তো সেখানে টি-২০ বিশ্বকাপ খেলা যায়।’

তবে যে যাই বলুক না কেন, আইসিসির সিদ্বান্ত ছাড়া কিছুই হবে না। আগামী ১০ জুন আইসিসির বোর্ড সভা রয়েছে। সেখানে বিশ্বকাপসহ আরও অনেক বিষয়ের সিদ্বান্ত আসতে পারে বলে ধারনা করা হচ্ছে।

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *