স্টিভ স্মিথ ব্যাটিং

প্রতিকূল পরিবেশেও স্মিথের সেঞ্চুরী

সাউদাম্পটন (ইউকে), ২৬ মে ২০১৯ : ইংল্যান্ডের মাঠে বলতে গেলে প্রতিকূল পরিবেশেই স্বাগতিকদের মোকাবেলায় নেমেছিল অস্ট্রেলিয়া। স্টিভ স্মিথ যখন ব্যাট হাতে তার মনোমুগ্ধকর ব্যাটিং শুরু করেন তখন উপস্থিত দর্শকরা, তাকে উদ্দেশ্য করে ‘প্রতারক’ উল্লেখ করে দুয়োধ্বনি দিতে শুরু করে। তবে দমাতে পারেনি এই অসি ব্যাটসম্যানকে। শনিবার বিশ্বকাপের অনুশীলন ম্যাচে সেঞ্চুরি হাকিয়ে দলীয় জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন তিনি।

বল টেম্পারিংয়ের অভিযোগে বছরব্যাপী নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফেরার পর গতকাল প্রথম ইংল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে নেমেই ১১৬ রানের অসাধারণ এক ইনিংস খেলেন স্মিথ। ম্যাচে অস্ট্রেলিয়া ১২ রানে হারায় ফেভারিট ইংল্যান্ডকে।

অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে ওপেনিং জুটিতে মাঠে নেমে বিদ্রুপ ও চিয়ার্স দুটিই জুটেছিল আসি ব্যাটসম্যান স্মিথ ও ডেভিড ওয়ার্নারের। দক্ষিন আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্টে বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারিতে সহযোগিতার দায়ে ওয়ার্নারকেও কাটাতে হয়েছে এক বছরের নির্বাসন। যে কারণে হ্যাম্পশায়ার সদরদপ্তরে অনুশীলন ম্যাচ দেখতে আসা প্রায় সাড়ে এগার হাজার দর্শকের রোষানলে পড়তে হয় এ অসি জুটিকে।

খেলা শেষে ১০২ বলের মোকাবেলায় আটটি চার ও তিনটি ছক্কা হাকিয়ে ইনিংস সাজানো স্মিথ সাংবাদিকদের বলেন, ‘প্রতিটি মানুষেরই ব্যক্তিগত মতামত প্রকাশের স্বাধীনতা রয়েছে। সেটি তারা যে কোনভাবেই প্রকাশ করতে পারে। তারা শোরগোল করেছে। তবে আমার কোন অসুবিধা করতে পারেনি। আমি তাদের ওই বিদ্রুপ কানেই ঢুকাইনি। যেটিকে তারা ‘হোয়াইট নয়েস’ (সাদা গোলমাল) আখ্যা দিয়েছে। আমি যখন খেলার মাঝপথে মাঠ ছাড়ি, তখনো তাদের ওই সব বিষয়ে মনোযোগ দিইনি।’ ম্যাচে ৯ উইকেটে অস্ট্রেলিয়ার ২৯৭ রানের পুঁজিতে সর্বাধিক ব্যক্তিগত সংগ্রহ ছিল স্মিথের।

অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক স্মিথ বলেন, তিনি এবং তার তৎকালীন সহ অধিনায়ক ওয়ার্নরের প্রত্যাবর্তনকে সতীর্থরা বেশ ভালভাবেই গ্রহন করেছে। বলেন, ‘আমরা আর কখনো বাঁকা পথে যাবনা। জানি আমি আমার সতীর্থরা সব সময় আমাদের সমর্থন জুগিয়েছে। এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাদেরকে এবং এবং অস্ট্রেলিয়া দলকে গৌরবান্বিত করাই হবে আমার আসল কর্ম।’

আসন্ন বিশ্বকাপ ও এ্যাশেজ সিরিজের জন্য দীর্ঘ সময়ের ইংল্যান্ড সফরকারী অসি দলের মধ্যে সবার নজর এখন স্মিথের দিকে। তবে স্মিথের প্রত্যাবর্তনকে বাঁধাগ্রস্ত করার মত কোন ইস্যু এখনো দেখা যায়নি। শনিবার তাকে দেখা গেল টানা চতুর্থ হাফ সেঞ্চুরি পূর্ণ করতে। নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে দলে ফেরার পর তিনি এর আগে ব্রিসবেনে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দু’টি অনুশীলন ম্যাচে অপরাজিত ৮৯ ও ৯১ রান সংগ্রহ করেছিলেন। এরপর বুধবার সাউদাম্পটনে বিশ্বকাপের আরেক অনুশীলন ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৭৬ রান সংগ্রহ করেন স্মিথ।

তিনি বলেন,‘ এই ম্যাচে আমি খুব বেশি যে মনোযোগ দিয়ে খেলেছি, তা নয়। কারণ এগুলো ছিল শুধুমাত্র অনুশীলন ম্যাচ। আশা করি শেষ পর্যন্ত আমি এই ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে পারব। এই মুহুর্তে আমি বেশ ভাল বোধ করছি। ক্রিজে নিজেকে সব সময় পরিপুর্ন ও শান্ত রাখতে পারছি। আশা করি বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়া দলে আমি বড় ভূমিকা রাখতে পারব।’

এদিকে উইকেটের পেছনে থেকে স্মিথের সেঞ্চুরির সেরা দর্শক ইংলিশ দলের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক উইকেট রক্ষক জস বাটলার বলেন, ‘তিনি এখনো আগের মতই আছেন। ১২ মাস আগে যেমন সে মানসম্পন্ন খেলোয়াড় ছিল, এখনো তেমনই আছে। সে কিছুই ভোলেনি। এখনো বিশ্বের সেরা ব্যাটসম্যানদের একজন।

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *