বাংলাদেশ -ভারত সিরিজ

বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষে ক্রিকেট ম্যাচ আয়োজন করতে চায় ভারত

ঢাকা, ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৯  : জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষে একটি ক্রিকেট ম্যাচ আয়োজন করতে চায় ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)। বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষে এশিয়া একাদশ ও বিশ্ব একাদশের মধ্যে দু’টি প্রদর্শনী ম্যাচের আয়োজন করবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। এরই ধারাবাহিকতায় একটি ম্যাচ আয়োজনের ইচ্ছে প্রকাশ করেছে পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের ক্রিকেট বোর্ড। গুজরাটের মোরাতায় নব সাজে সজ্জিত সরদার প্যাটেল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে নির্মিত বঙ্গবন্ধুর শততম জন্ম বার্ষিকী উপলক্ষে তৃতীয় ম্যাচটি আয়োজনের ইচ্ছে প্রকাশ করে বিসিবি’র কাছে প্রস্তাব দিয়েছে বিসিসিআই।

এ ম্যাচ দিয়েই এক লাখ দশ হাজার ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন বিশ্বের সর্ববৃহত এ স্টেডিয়ামটি উন্মোচন করতে আগ্রহী ভারত। বিশ্ব তারকা সমৃদ্ধ অপর দু’টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে ঢাকার মিরপুরে শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে।

বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন জানিয়েছেন, একটি ম্যাচ আয়োজনে বিসিসিআই ইতোমধ্যেই তাদের আগ্রহ প্রকাশ করেছে। তবে এখনো আনুষ্ঠানিক কোন প্রস্তাব দেয়নি।

পাপন আজ সাংবাদিকদের বলেন, ‘এটা সত্যি যে, তারা একটি প্রস্তাব দিয়েছে। তবে এখনো সেটা আনুষ্ঠানিক নয়। এখন পর্যন্ত বিষয়টি প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে। বিসিসিআই জানিয়েছে, সিরিজের আগে স্টেডিয়ামটি প্রস্তুত হলে তারা বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে একটি ম্যাচ আয়োজন করতে চায়।’

বিসিসিআই যুগ্ম-সচিব জয়েশ জর্জের উদ্ধৃতি দিয়ে ভারতের বেশে কয়েকটি পত্রিকার খবরে বলা হয়েছে- এ সিরিজে পাকিস্তানের কোন খেলোয়াড়কে আমন্ত্রণ জানানো হবে না এবং অধিনায়ক বিরাট কোহলিসহ ভারতের বর্তমান জাতীয় দলের পাঁচ ক্রিকেটার এশিয়া একাদশের হয়ে খেলবে।

জয়েশ জর্জ বলেন, ‘আমরা জানি এশিয়া একাদশে পাকিস্তানের কোর খেলোয়াড় থাকবে না দুই দেশের ক্রিকেটারদের একসঙ্গে খেলার কোন সম্ভাবনা নেই এশিয়া এবাদশের হয়ে ভারতের কোন পাঁচ ক্রিকেটার খেলবেন, তা ঠিক করবেন সৌরভ গাঙ্গুলী।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে পাপন বলেন, এ ধরনের কিছু এখনো আলোচনা হয়নি।

তিনি বরেন,‘ এ বিষয়ে এখনো কিছু আলোচনা হয়নি। ম্যাচটি হবে এশিয়া একাদশ ও বিশ্ব একাদশের মধ্যে। সুতরাং যাদের পাওয়া যাবে তারা খেলবে। পাকিস্তানী খেলোয়াড়রা খেলবে না- এমন কিছু আমি বলিনি। ’

‘তবে হতে পারে- এ সময় পাকিস্তান সুপার লীগ চলবে, যে কারণে খেলোয়াড় পাঠানোর বিষয়ে পাকিস্তান কোন জবাব দেয়নি। অন্য বোর্ডগুলো জবাব দিয়েছে।’

পাপন আরো বলেন, ‘পিসিবি আমাদের সময় পরিবর্তন করতে বলেছিল। তবে এটা সম্ভব নয়,ম কেননা বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ১৭ মার্চ। যে কারণে ম্যাচগুলো আয়োজনের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে আমাদের ১৮-২২ মার্চ সময় বেঁধে দেয়া হয়েছে।

সরকারের অন্য পরিকল্পনা আছে এবং তাদের অন্য বিষয়েও সময় নির্ধারিত আছে। সুতরাং সূচিতে পরিবর্তন আনা সম্ভব নয়। তাদের কাছ থেকে কোন জবাব না পেয়ে বিষয়টি আমরা পিসিবিকে জানিয়ে দিয়েছি।’

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *