বঙ্গবন্ধু টি-২০ কাপ , ছবিঃসংগৃহীত।

বঙ্গবন্ধু টি-টুয়েন্টি কাপ দেশী খেলোয়াড়দের জন্য বড় প্লাটফর্ম

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজন জানিয়েছেন, নিজেদের প্রতিভা প্রদর্শনে বঙ্গবন্ধু টি-টুয়েন্টি কাপ স্থানীয় খেলোয়াড়দের জন্য বড় একটি প্লাটফর্ম।

তার বিশ্বাস আসন্ন টুর্নামেন্টটি একই সাথে বাংলাদেশ ক্রিকেটকেও উপকৃত করবে। কারণ টিম ম্যানেজমেন্ট অবশ্যই আরও কিছু খেলোয়াড়কে খুঁজে পাবে, যারা জাতীয় দলে কিছু জায়গা পূরণ করবে।

বেক্সিমকো ঢাকার কোচ মাহমুদ বলেন, ‘প্রতিভা প্রদর্শনের জন্য এই টুর্নামেন্টটি স্থানীয় খেলোয়াড়দের জন্য একটি ভাল সুযোগ।

খেলোয়াড়রা যেমন স্পটলাইটে যেতে সক্ষম হবে, একই সাথে বাংলাদেশের ক্রিকেটও এই টুর্নামেন্টের মাধ্যমে উপকৃত হবে।’

ওয়ানডে ক্রিকেটে ভালো করলেও, টেস্ট ও টি-টুয়েন্টি ক্রিকেটে এখনো নিজেদের সেরাটা দিতে পারেনি বাংলাদেশ। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) শুরু হবার পরও ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে দক্ষতা অর্জন করতে পারেনি বাংলাদেশ।

বিপিএলে বিদেশী খেলোয়াড়দের ছায়ায় থাকতে হয় স্থানীয় ক্রিকেটারদের। এতে স্পটলাইটে আসতে পারে না তারা।

বেশিরভাগ সময় স্থানীয় খেলোয়াড় গুরুত্বপূর্ণ সময়ে দলের হয়ে ব্যাটিং বা বোলিংএ নিজেদের মেলে ধরার সুযোগ পায় না। যে কারণে তারা নিজেদের সক্ষমতা প্র¤œ করতে পারেনা।

বিদেশীরা না থাকায় স্থানীয় তরুণ ক্রিকেটাররা বঙ্গবন্ধু টি-টুয়েন্টি কাপে নিজেদের প্রমাণ করার সুযোগ পাবে বলে আত্মবিশ্বাসী মাহমুদ।

বাংলাদেশের সাবেক অধিনায়ক মাহমুদ বলেন, ‘তরুন ক্রিকেটারদের জন্য এটি খুবই ভালো সুযোগ। যখন বিপিএল শুরু হয়, বিদেশী খেলোয়াড়দের কারনে আমাদের তরুণ বোলাররা গুরুত্বপূর্ণ সময়ে বোলিং করতে পারে না। ফলে ডেথ ওভারে আমরা ভালো বোলার খুঁজে বের করতে পারিনি। আমরা এই টুর্নামেন্ট থেকে কিছু প্রতিভাবান ক্রিকেটার পেতে পারি। অনেক তরুণ ক্রিকেটারকে এই আসরে নিজেদের বিসিবির সামনে প্রমান করতে হবে।’

আগামী ২৪ নভেম্বর থেকে পাঁচ দলকে নিয়ে এই টুর্নামেন্টটি শুরু হবে। ইতোমধ্যে দলগুলো নিজেদে খেলোয়াড় চূড়ান্ত করেছে।

জাতীয় দলের পাশাপাশি এইচপি ইউনিটের ক্রিকেটাররা, অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জয়ী ক্রিকেটাররা এখানে অর্ন্তভুক্ত আছেন।

মাহমুদ মনে করেন, তরুন খেলোয়াড়দের উন্নতিতে প্রতিযোগিতাটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

তিনি বলেন, ‘নিজেদের প্রমানের ভালো সুযোগ পেয়েছে তরুণ ক্রিকেটাররা। তারা চার ও পাঁচ নম্বরের মত গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় ব্যাট করবে এবং ম্যাচ শেষ করে আসতে হবে। এটি তাদের দক্ষতার পরীক্ষা। এই টুর্নামেন্ট থেকে তারা অনেক কিছুই শিখতে পারবে। তারা কিভাবে চাপকে সামাল দিতে পারে সেটিই দেখার বিষয়।’

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *