মুশফিকুর রহিম , ছবিঃসংগৃহীত।

বৃষ্টিও আটকাতে পারেনি মুশফিকদের অনুশীলন

দূর্যোগপূর্ণ আবহাওয়াও আটকাতে পারেনি বাংলাদেশ জাতীয় দলের চার ক্রিকেটারের অনুশীলন। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) নেয়া কড়া প্রোটোকলের মাঝে মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে নিজেদের অনুশীলন অব্যাহত রেখেছেন ক্রিকেটাররা।

করোনাভাইরাস প্রতিরোধ

করোনাভাইরাস প্রতিরোধ

আজ মোট চারজন ক্রিকেটার মিরপুরে অনুশীলন করে। নতুনভাবে অনুশীলনে যোগ দিয়েছেন মেহেদি হাসান রানা। আগের থেকেই অনুশীলনে ছিলেন মুশফিকুর রহিম, শফিউল ইসলাম ও ইমরুল কায়েস। অনুশীলনের তালিকায় যোগ দিয়েছেন পেসার তাসকিন আহমেদও। তবে আগামী বৃহস্পতিবার থেকে অনুশীলন শুরু করবেন তাসকিন। এক বিবৃতিতে এটি জানিয়েছে বিসিবি।

ব্যক্তিগত অনুশীলনের তৃতীয় দিন, বৃষ্টির মধ্যেই নিজেদের অনুশীলন চালিয়ে গেছেন মুশফিক ও শফিউল। ৩০ মিনিট জগিং করেছেন শফিউল। ৩০ মিনিট জগিং করেছেন মুশফিক। এরপর ইনডোরে বোলিং মেশিনে এক ঘন্টা ব্যাটিং অনুশীলন করেন মুশফিক।

বৃষ্টি চলাকালীন নিজের জগিং অব্যাহত রাখেন গতকাল ব্যাটিংএর সময় বা-হাতে আঙ্গুলে ব্যাথা পাওয়া ইমরুল। রানাও জগিং সেশনে যোগ দেন। সে যোগ দেয়ায় জগিং চালিয়ে গেছেন ইমরুল।

গেল বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে পারফরমেন্স দিয়ে স্পটলাইটে আসেন রানা। ৩০ মিনিট জগিং করেছেন রানাও।

বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরি বলেন, ‘স্টেডিয়ামে মানসম্মত স্বাস্থ্য প্রোটোকলের ব্যবস্থা রয়েছে এবং খেলোয়াড়রা অনুশীলন চলাকালীন তা খুবই সুন্দরভাবে মেনে চলছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘তাদের ও অন্যদের সুরক্ষার জন্য, সকলকে এই স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলতে হবে এবং বিসিবি এ বিষয়ে খুবই সর্তক। আশা করি, আমরা এটি নিরাপদে চালিয়ে যেতে পারবো।’

শুরুতে নয়জন খেলোয়াড় চার ভেন্যুতে নিজেদের ব্যক্তিগত অনুশীলন করার সুযোগ পায়। ভেন্যুগুলো হলো- মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম, চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়াম, খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়াম এবং সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম।

ঢাকায় তিন জন, খুলনা ও সিলেটে দু’জন করে এবং চট্টগ্রামে একজন মাঠে অনুশীলন করার সুযোগ পায়।

পরবর্তীতে আরও দু’জনের যোগদানের বিষয়টি নিশ্চিত করে বিসিবি। তারা হলেন- রানা ও তাসকিন। তারা মিরপুরে অনুশীলন করবেন।

বর্তমান পরিস্থিতির কারনে খেলোয়াড়দের মাঠে অনুশীলনের জন্য উৎসাহিত করেনি বিসিবি। তাদের স্বাস্থ্য বিধি মেনে ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে অনুশীলনের অনুমতি দেয় বিসিবি।

সময় গড়ানোর সাথে ব্যক্তিগত অনুশীলনের তালিকায় খেলোয়াড়ের সংখ্যা বাড়বে বলে ধারনা বিসিবির। একই সাথে ঈদুল আযহার পর কন্ডিশনিং ক্যাম্প শুরুর পরিকল্পনা রয়েছে বিসিবির।

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *