নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দল ,ছবিঃটুইটার।

বোলারদের নৈপুণ্যে সিরিজে লিড নিলো নিউজিল্যান্ড

নেলসন, ৫ নভেম্বর, ২০১৯ : কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমের হাফ-সেঞ্চুরির সাথে বোলারদের নৈপুণ্যে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচ টি-২০ সিরিজে লিড নিলো নিউজিল্যান্ড। আজ সিরিজের তৃতীয় ম্যাচে কিউইরা ১৪ রানে হারিয়েছে ইংলিশদের। এই জয়ে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে গেল নিউজিল্যান্ড। সিরিজের প্রথম ম্যাচে ইংল্যান্ড ৭ উইকেটে ও নিউজিল্যান্ড ২১ রানে জয় পেয়েছিলো।

প্রথম দু’ম্যাচে টস জিততে না পারলেও, তৃতীয় টি-২০তে ঠিকই টস ভাগ্যে জিতে নিউজিল্যান্ড। টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং নেমে ওপেনার মার্টিন গাপটিলের বিধ্বংসী ব্যাটিং-এ ভালো সূচনা পায় নিউজিল্যান্ড। ৩ দশমিক ৫ ওভারে উদ্বোধনী জুটিতে ৪০ রান পায় স্বাগতিকরা। এরমধ্যে ১৭ বলে ৭টি চারে ৩৩ রানই করেন গাপটিল। অন্য ওপেনার কলিন মুনরোর অবদান ছিলো মাত্র ৬ রান। টম কারানের শিকার হন গাপটিল এবং মুনরোকে আউট করেন ব্রাউন। তিন নম্বরে নামা টিম সেইফার্ট ৭ রানে পার্কিনসনের শিকার হলে ৬৯ রানে ৩ উইকেট হারাতে হয় নিউজিল্যান্ডকে।

এরপর দলকে বড় জুটির স্বাদ দেন গ্র্যান্ডহোম ও রস টেইলর। ইংল্যন্ডর বোলারদের বিপক্ষে তাদের স্বাচ্ছন্দ্য ব্যাটিংয়ে বড় স্কোরের দিকেই হাটতে থাকে নিউজিল্যান্ড। বড় জুটি গড়ার পথে ব্যাট হাতে টি-২০ ক্যারিয়ারের তৃতীয় হাফ-সেঞ্চুরির স্বাদ নেন গ্র্যান্ডহোম। অর্ধশতকের দেখা পেয়ে ৫৫ রানে বিদায় নেন গ্র্যান্ডহোম। টম কারানের বলে আউট হবার আগে ৫টি চার ও ৩টি ছক্কায় ৩৫ বল মোকাবেলা করে নিজের ইনিংসটি সাজান গ্র্যান্ডহোম। টেইলরের সাথে চতুর্থ উইকেটে ৪৪ বলে ৬৬ রান যোগ করেন গ্র্যান্ডহোম।

১৫তম ওভারের পঞ্চম বলে দলীয় ১৩৫ রানে গ্র্যান্ডহোম ফিরলেও, টেইলর-জেমস নিশাম-মিচেল স্যান্টনারের ছোট-ছোট ইনিংসের কল্যাণে ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৮০ রানের বড় সংগ্রহ পায় নিউজিল্যান্ড। টেইলর ২৪ বলে ২৭, নিশাম ১৫ বলে ২০ ও স্যান্টনার ৯ বলে ১৫ রান করেন। ইংল্যান্ডের টম কারান ২৯ রানে ২ উইকেট নেন।

জবাবে ১৮১ রানের লক্ষ্যে দলীয় ২৭ রানে প্রথম উইকেট হারায় ইংল্যান্ড। অভিষেক ম্যাচ খেলতে নামা ওপেনার টম বান্টন ১০ বলে ২টি চার ও ১টি ছক্কায় ১০ বলে ১৮ রানের মাথায় টিকনারের শিকার হন। তৃতীয় ওভারে ওপেনারকে হারালেও, ম্যাচ জয়ের পথে দলকে ভালোভাবেই টিকিয়ে রাখেন ডেভিড মালান ও জেমস ভিন্স। ১০ ওভারেই দলের স্কোর ৯০ তে নিয়ে যান তারা।

এরমধ্যে ৮ ম্যাচের টি-২০ ক্যারিয়ারে পঞ্চম হাফ-সেঞ্চুরির দেখা পান মালান। হাফ-সেঞ্চুরির পরই নিউজিল্যান্ডের স্পিনার ইশ সোধির বলে আউট হন মালান। ৩৪ বলের ইনিংসে ৮টি চার ও ১টি ছক্কা হাকান তিনি। মালানের সাথে দ্বিতীয় উইকেটে ৪৫ বলে ৬৩ রান দলকে উপহার দেন ভিন্স।

দলীয় ৯০ রানে মালান ফিরে গেলে ক্রিজে ভিন্সের সঙ্গী হন অধিনায়ক ইয়োইন মরগান। দলের জয়ের পথকে সহজ করতে রানের চাকা সচল রেখেছিলেন তারা। ফলে বেশ ভালোভাবেই জয়ের পথে টিকে ছিলো ইংল্যান্ড। জয়ের জন্য শেষ ৬ ওভারে ৫৮ রান দরকার পড়ে তাদের। ১৫তম ওভারে ১৬ রান তুলে বলের সাথে রানের ব্যবধানটা ভালোই কমিয়ে আনেন ভিন্স-মরগান। কিন্তু ঐ ওভারের শেষ বলে স্যান্টনারের শিকার হন মরগান। ২টি ছক্কায় ১৩ বলে ১৮ রান করেন মরগান। মরগান-ভিন্স জুটি ২৮ বলে ৪৯ রান তুলেন।

মরগানের আউটের পরই পথ হারায় ইংল্যান্ড। মাত্র ৭ রানের ব্যবধানে ৪ উইকেট হারিয়ে ম্যাচ থেকে ছিটকে পড়ে ইংলিশরা।

দলীয় ১৪৯ রানে সপ্তম উইকেট হারায় তারা। এ সময় ভিন্স ৩৮ বলে ৪টি চার ও ১টি ছক্কায় ৪৯, উইকেটরক্ষক স্যাম বিলিংস ১, স্যাম কারান ২ ও লুইস গ্রেগরি শুন্য রানে ফিরেন। শেষদিকে টম কারান ১০ বলে অপরাজিত ১৪ ও সাকিব মাহমুদ অপরাজিত ৩ রান করেও দলের হার এড়াতে পারেননি। শেষ পর্যন্ত ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৬৬ রান পর্যন্ত যেহে সক্ষম হয় ইংল্যান্ড।

নিউজিল্যান্ডের পক্ষে ২টি করে উইকেট নেন লোকি ফার্গুসন ও বেøয়ার টিকনার। ম্যাচ সেরা হয়েছেন নিউজিল্যান্ডের গ্র্যান্ডহোম।

নেপিয়ারে আগামী ৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে সিরিজের চতুর্থ টি-২০।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

নিউজিল্যান্ড :
১৮০/৭, ২০ ওভার
গ্র্যান্ডহোম- ৫৫
গাপটিল -৩৩
টম কারান -২/২৯

ইংল্যান্ড :
১৬৬/৭, ২০ ওভার
মালান -৫৫
ভিন্স -৪৯
ফার্গুসন- ২/২৫

ফল : নিউজিল্যান্ড ১৪ রানে জয়ী।
ম্যাচ সেরা : কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমের (নিউজিল্যান্ড)।
সিরিজ : পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে নিউজিল্যান্ড।

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *