মাশরাফি বিন মর্তুজা , ছবিঃসংগৃহীত।

ব্রেসলেটটি মাশরাফিরই থাকছে

গেল ১৮ বছর ধরে স্মরনীয় মূর্হুতের অংশ হয়ে থাকা ব্রেসলেটটি নিলামে ৪২ লাখ টাকায় বিক্রি হলেও সেটি মাশরাফিরই থাকছে। কারন ‘অকশন ফর অ্যাকশনের’ মাধ্যমে সর্বোচ্চ দর দিয়ে ব্রেসলেটটি কিনে নেয়া প্রতিষ্ঠান দ্য বাংলাদেশ লিজিং এন্ড ফাইন্যান্স কোম্পানি অ্যাসোসিয়েশন (বিএলএফসিএ), সেটি মাশরাফিকেই উপহার হিসেবে দেয়ার ঘোষনা দিয়েছে।

কোরোনাভাইরাস প্রতিরোধ

কোরোনাভাইরাস প্রতিরোধ

‘অকশন ফর অ্যাকশনের’ ফেসবুক লাইভ নিলাম শেষ হবার পর বিএলএফসিএ’র চেয়ারম্যান মোমিনুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা এটি আবার মাশরাফিকে উপহার দিতে চাই।’ এ সময় ঐ লাইভ অনুষ্ঠানে যুক্ত থাকা মাশরাফিই নিলামে ব্রেসলেটটি জিতে নেয়া বিজয়ীর নাম ঘোষনা করা হয়।

মোমিনুল আরও বলেন, ‘আমরা সর্বোচ্চ ৪০ লাখ টাকায় ব্রেসলেটটি বিড করেছিলাম। কিন্তু আরেকটি কোম্পানি আইপিডিসি আমাদের সাথে যুক্ত হয়ে আরো পাঁচ শতাংশ দিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। ফলে শেষ পর্যন্ত এর দাম পড়েছে ৪২ লাখ টাকা।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘ মাশরাফি আগেই বলেছেন এই ব্রেসলেটটি তার খুবই প্রিয় এবং তার জন্য এটি খুবই ভাগ্যস্বরুপ। ১৮ বছর ধরে এটি তার সঙ্গে আছে। বাংলাদেশের হয়ে ক্যারিয়ার শুরুর থেকেই ব্রেসলেটটি মাশরাফির সঙ্গী। আমি মনে করি এই ব্রেসলেটটি মাশরাফির হাতেই মানায়। তাই আমরা চাই না ব্রেসলেটটির সঙ্গে মাশরাফির সম্পর্ক ছেদ হোক। আমরা এটি তাকেই উপহার হিসেবে দিতে চাই এবং তাকে অনুরোধ করব তিনি এটা গ্রহণ করুক।’

মোমিনুল আরো বলেন করোনাভাইরাস পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবার পর তারা একটি অনুষ্ঠান করে মাশরাফিকেই ব্রেসলেটটি উপহার দেবেন।

মোমিনুল, ‘ব্রেসলেটটি এখন আপনার কাছেই থাককু। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আমরা একটা অনুষ্ঠান করে এটি পুনরায় আপনাকে উপহার দিতে চাই।’

মোমিনুলের কথা শুনে আবেগপ্রবন হয়ে পড়েন মাশরাফি। তিনি বলেন, ‘আপনাদের অসংখ্যা ধন্যবাদ। আপনারা এমন একটা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তবে আমি বলছি, এটা আপনাদের কাছে থাকলেও আমার একটা ফোটাও কষ্ট হবে না। কারণ এটার উদ্দেশ্য একটাই করোনাকালে বিপদে পড়া মানুষদের সহযোগিতা করা। বিশ্বের এই সংকটময় সময়ে বাংলাদেশের মানুষের পাশে দাঁড়ানোই মূল লক্ষ্য। যার অর্থ চলে যাবে নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশনে গরীব-দুঃস্থ মানুষের সাহায্যের জন্য।’

ক্যারিয়ারের শুরুতে লাল-সবুজ রঙে ‘বাংলাদেশ’ লেখা রিস্ট ব্যান্ড পরতেন মাশরাফি। পরে স্টিলের তৈরি করা এই ব্রেসলেটটি এক বন্ধুর কাছ থেকে বানিয়ে নেন তিনি। ব্রেসলেটে ইংরেজিতে খোদাই করে লেখা ‘মাশরাফি’। প্রায় ১৮ বছর ধরে এই ব্রেসলেটটি ব্যবহার করছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে সফল অধিনায়ক।

এর আগে ‘অকশন ফর অ্যাকশনের’ সাকিব আল হাসান ২০১৯ বিশ্বকাপ খেলা তার প্রিয় ব্যাট নিলামে তুলেছিলেন। যা ২০ লাখ টাকায় বিক্রি হয়।

মুশফিকুর রহিম দেশের পক্ষে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি করা ব্যাটটি নিলামে তুলেন। যা বিক্রি হয় প্রায় ১৭ লাখ টাকায়।

এছাড়া তাসকিন আহমেদ, সৌম্য সরকার, নাঈম শেখ, অনূর্ধ্ব-১৯ দলের অধিনায়ক আকবর আলীসহ আরও বেশ কয়েকজন তারকা ক্রীড়াবিদ নিজ নিজ পছন্দের ক্রিকেট সরঞ্জামাদি নিলামে তুলেন।

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *