এ্যারন ফিঞ্চ ,ছবিঃসংগৃহীত।

ভারতকে হারানোর দক্ষতা অস্ট্রেলিয়ার আছে : ফিঞ্চ

সিডনি, ৯ জানুয়ারি ২০১৯  : বিরাট কোহলির দলের সঙ্গে পাল্লা দেয়ার মত অস্ত্র তার হাতে রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক এ্যারন ফিঞ্চ। তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলতে বৃহস্পতিবার ভারতের উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়ার আগে এমন মন্তব্য করেছেন ফিঞ্চ।

আগামী ১৪ জানুয়ারি মুম্বাইয়ে সিরিজের প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হবে ভারত ও অস্ট্রেলিয়া। এরপর রাজকোট ও ব্যাঙ্গালোরে বাকী দুই ম্যাচে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করবে দল দুটি। গত বছর অনুষ্ঠিত ইংল্যান্ড বিশ্বকাপের পর এই প্রথম সিমীত ওভারের ম্যাচে প্ররস্পরের মুখোমুখি হতে যাচ্ছে ভারত ও অস্ট্রেলিয়া। দুই দলই বিশ্বকাপের সেমি-ফাইনাল থেকে ছিটকে পড়ে।

ফিঞ্চের বিশ্বাস স্বাগতিক ভারতের মোকাবেলার জন্য প্রয়োজনীয় রশদ তার দলের আছে। গত বছরের শুরুতে অনুষ্ঠিত সিরিজে ভারতের মাটিতে আপসেটের জন্ম দিয়ে ৩-২ ব্যবধানে সিরিজ জয় করেছিল অস্ট্রেলিয়া। অধিনায়ক ফিঞ্চ ক্রিকেট ডট কম ডট অস্ট্রেলিয়াকে বলেন, ‘তাদের কন্ডিশনে আমাদের গেম পরিকল্পনা খুবই ভাল। আর এটিই আমাদেরকে আত্মবিশ্বাস যোগাচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘উপ-মহাদেশীয় কন্ডিশনে অনেক কিছুই নির্ভর করে শুরুর উপর। কারণ সেখানে স্বাগতিক দল ভাল অবস্থানে যেতে পারলেই প্রভাব বিস্তার করে নেবে। ভারত বলুন কিংবা পাকিস্তান বা শ্রীলংকা। তারা আপনার শুরুটা মাটি করার চেস্টা করবেই।

জানি আমাদের গেম পরিকল্পনা খুবই ভাল। ভারতের মাটিতে তাদের হারানোর মত দক্ষতাও আছে। আর এটিই সেখানে যাবার সময় আমাদের মধ্যে আত্মবিশ্বাস যুগিয়ে দিচ্ছে।’

গ্রীষ্মে টেস্ট নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটানোর কারণে এই সফরে দলের সঙ্গে যাচ্ছেন না অস্ট্রেলিয়ার নিয়মিত কোচ জস্টিন ল্যাঙ্গার। পরিবর্তে দায়িত্ব পালন করবেন তার সহকারী এন্ড্রু ম্যাকডোনাল্ড।

কোচ হিসেবে দারুণ উন্নতি করেছেন ম্যাকডোনাল্ড। চার বছর আগেও অস্ট্রেলিয়ার ঘরোয়া টি-২০ লীগ বিগ ব্যাশ খেলেছেন তিনি। এর পর কোচ হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন। এরই ধারাবাহিকতায় গত অক্টোবরে ল্যাঙ্গারের দক্ষিন হস্ত বনে যান তিনি।

এই সপ্তাহেই ল্যাঙ্গার সাংবাদিকদের বলেছিলেন, ‘তিনি দারুণ দক্ষতা অর্জন করেছেন। ক্রমেই এগিয়ে যাচ্ছে। এখন তিনি দারুণ সুযোগ পাচ্ছেন। আমি তাকে বলেছি- আমরা তাকে নতুন করে আবিস্কার করছি না। তাকে নতুন করে বাজিয়ে দেখছি না। তাকে এগিয়ে যাবার সুযোগ দিচ্ছি। জবাবে তিনি বলেন- আমি আপনাকে বাজাব। সে সত্যিকার অর্থে ভাল কাজ দেখানোর জন্য প্রস্তুত।’

এই সিরিজে ফর্মে থাকা ব্যাটসম্যান মার্নাস লাবুশেনকে স্কোয়াডভুক্ত করে অস্ট্রেলিয়া দারুন অবস্থানে রয়েছে। পাকিস্তান ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দারুণ এক টেস্ট গ্রীস্ম কাটিয়েছেন তিনি। এখন অপেক্ষায় আছেন ওয়ানডে অভিষেকের।

নতুন এই তারকা প্রসঙ্গে ফিঞ্চ বলেন,‘ আমরা জানি তাকে নিয়ে বেশি কিছু বলার নেই।’

১৮ মাস পর ফের ভারত সফরকারী ওয়ানডে স্কোয়াডে স্থান পেয়েছেন এ্যাস্টন আগার। ইনজুরি থেকে ফিরে জাতীয় দলে ডাক পেয়েছেন জশ হ্যাজেল উড। যেখানে তিনি পার্টনার হিসেবে পেতে যাচ্ছেন মিচেল স্টার্ক ও প্যাট কামিনসকে।

তবে উসমান খাজা, শন মার্শ, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, মার্কাস স্টয়নিস ও নাথান লিওঁ’র মতা হাই প্রোফাইল খেলোয়াড়দের জায়গা হয়নি এই স্কোয়াডে।

অস্ট্রেলিয়া স্কোয়াড: এ্যারন ফিঞ্চ (অধিনায়ক), এ্যাস্টন আগার, এ্যালেক্স কেরি, প্যাট কামিন্স, পিটার হ্যান্ডসকম্ব, জশ হ্যাজেল উড, মার্নাস লাবুশেন, কেন রিচার্ডসন, ডি’আর্চি শর্ট, স্টিভ স্মিথ, মিচেল স্টার্ক, এ্যাস্টন টার্নার, ডেভিড ওয়ার্নার ও এডাম জাম্পা।

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *