মোমিনুল হক, ছবি: সংগৃহীত।

ভারতের বিপক্ষে বাজে ব্যাটিংকেই দুষলেন মোমিনুল

কলকাতা, ২৪ নভেম্বর ২০১৯  : টপ অর্ডারে পার্টনারশীপ ঘাটতিই ভারতের বিপক্ষে দিবা-রাত্রির টেস্টের ব্যর্থতা মনে বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মোমিনুল হক। কলকাতার ইডেনে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টেও স্বাগতিকদের কাছে ইনিংস ও ৪৬ রানে পরাজিত হয়ে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে হোয়াইট ওয়াশ হয়েছে বাংলাদেশ।

এর আগে ইন্দোরে অনুষ্ঠিত সিরিজের প্রথম টেস্টেও ইনিংস ও ১৩০ রানে পরাজিত হয়েছিল টাইগাররা। আইসিসির নিষেধাজ্ঞার কারণে সাকিব আল হাসানের অনুপস্থিতিতে টেস্ট দলের নেতৃত্ব পাওয়া মোমিনুলের মতে তারা যদি কিছু পার্টনারশীপ গড়তে পারতেন তাহলে গল্পটি অন্য রকম হতো।

কোলকাতার ইডেনে প্রথম দিবারাত্রির টেস্টে পরাজিত হবার পর বাংলাদেশ অধিনায়ক বলেন,‘ পেশাদার ক্রিকেটে অজুহাতের কোন সুযোগ নেই। তাই আমি কোন অজুহাত দেখাতে চাই না। দল হিসেবে আমরা ভাল করিনি, এমনকি কোন পার্টনারশীপই গড়তে পারিনি। আপনারা ম্যাচের দিকে তাকালেই দেখবেন, মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ গতকাল দারুন একটি পার্টনারশীপ গড়ে তুলেছিলেন। ম্যাচের বিভিন্ন পর্যায়ে আমরা যদি এমন কিছু পার্টনারশীপ গড়তে পারতাম, তাহলে প্রতদ্ব›িদ্বতা করতে পারতাম। আসলে আমরা খুবই খারাপ ব্যাটিং করেছি। ’

দুই টেস্টেই প্রথম ইনিংসে বাজে ব্যাটিংয়ের খেসারত দিতে হয়েছে টাইগারদের। ইন্দোরে তারা ১৪৩ রানে অল আউট হয়ে যায়। এখানকার দিবা-রাত্রির ম্যাচেও প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ অল আউট হয়েছে মাত্র ১০৬ রানে।

মোমিনুলের মতে লাল বলের তুলনায় গোলাপী বলের পেস মোকাবেলা করা বেশী কঠিন। তিনি বলেন, ‘আমার মনে হয় লাল বলের চেয়ে গোলাপী বলের মোকাবেলা করা বেশী চ্যালেঞ্জের। আমরা যদি নতুন বলে ভালভাবে মোকাবেলা করতে পারতাম, তাহলে শিশিরে ভিজে অপেক্ষাকৃত নরম বলের বিপক্ষে ভাল ব্যাট করতে পারতাম। যেহেতু গোলাপী বলের চ্যালেঞ্জ আমরা মোকাবেলা করতে পারিনি তাই আমরা হেরে গেছি।’

স্পোর্টিং উইকেটে পেসারদের বিপক্ষে বাংলাদেশ দলের সংগ্রামের কারণ টেকনিক্যাল ইস্যু বলে ক্রিকেট বোদ্ধারা যে প্রশ্ন তুলেছেন, তার জবাবে কোন টেকনিক্যাল ইস্যু ছিলনা বলে জানান মোমিনুল। তিনি বলেন, ‘আমি কোন টেকনিক্যাল ইস্যু দেখছি না। তবে এটি সত্যি যে প্রতিটি ক্ষেত্রেই আমাদেরকে উন্নতি করতে হবে। সেটি টেকনিক্যাল হোক কিংবা ট্যাকটিক্যাল।’

ইডেনে টস জিতে বাংলাদেশ দলের প্রথমে বোলিং নেয়ার সিদ্ধান্তটি দারুন সমালোচিত হয়েছে। এমনকি বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনও এতে বিষ্ময় প্রকাশ করেছেন। কিন্তু বিসিবি প্রধানের বিষয়ে কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি মোমিনুল।

তবে কেন তিনি ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্তটি নিয়েছিলেন তার ব্যাখ্যা দিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘আমরা যদি প্রথমে ফিল্ডিং নিতাম, তাহলে দ্বিতীয় ইনিংসে আমাদের ব্যাটিং করতে হতো। লাইটের আলোতে তখন আমাদের আরো কিছু চ্যালেঞ্জের সুম্মুখীন হতে হতো। আপনারা জানেন নতুন গোলাপী বলে লাইটের আলোতে ব্যাট করা কতটা চ্যালেঞ্জের। শিশির যখন বলকে কিছুটা নরম করে দিতো তখনই কেবল ব্যাটিং সহজ হয়ে আসতো। আমরা যদি দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতাম, তাহলেও চ্যালেঞ্জের মোকাবেলা করতে হতো। এ কারণেই আমরা প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম।’

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *