তামিম ইকবাল , ছবি: সংগৃহীত।

মধ্যরাত অবধি গাঙ্গুলীর ফোনের অপেক্ষায় ছিলেন তামিম

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) প্রথমবারের মত ম্যাচ খেলার প্রত্যাশায় মধ্যরাত পর্যন্ত সৌরভ গাঙ্গুলীর ফোনের জন্য অপেক্ষায় ছিলেন বলে জানালেন বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল।ফোন কল না আসায়, আইপিএলে একটা ম্যাচ খেলার স্বপ্ন ভঙ্গহয়ে যায় তামিমের।

কোরোনাভাইরাস প্রতিরোধ

কোরোনাভাইরাস প্রতিরোধ

গতকাল রাতে ফেসবুকে ভারতের ওপেনার রোহিত শর্মার সাথে লাইভ আড্ডায় পুরনো ঘটনাটি প্রকাশ করেন তামিম।

২০১২ সালের আইপিএলে তামিমকে দলে নিয়েছিল পুনে ওয়ারিয়র্স । ঐ সময় পুনের অধিনায়ক ছিলেন বর্তমানে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলী।

তামিম বলেন, গাঙ্গুলী তাকে বলেছিলো, পরের ম্যাচের জন্য তাকে প্রস্তুত থাকতে। কিন্তু এমন কিছু ঘটেনি।

পুরনো স্মৃতি মনে করে রোহিতকে তামিম বলেন, ‘দাদা বলেছিলেন, পরের ম্যাচে আমাকে খেলার চিন্তা-ভাবনা করছেন তিনি।

একই সাথে তিনি এটিও বলেছিলেন খেলার সুযোগ পাব কি-না, এ বিষয়ে তিনি নিশ্চিত নন। তারপরও তিনি বলেন, যদি আমাকে পরের ম্যাচে খেলানোর সিদ্বান্ত নেয়া হয়, তবে তিনি আমাকে রাতে কল করবেন।

তামিম জানান, ‘আমি খেলার জন্য খুব বেশি আশা করেছিলাম। এজন্যই আমার ঘুম হয়নি এবং ফোন কলের জন্য মধ্যরাত পর্যন্ত অপেক্ষা করেছি। কিন্তু ফোন কল আসেনি।’

এরপর থেকে আইপিএলে ড্রাফটের জন্য তামিম আর কোন ডাক পাননি।

তামিম বলেন, ‘পরবর্তীতে আইপিএলের কোন দলের কাছ থেকে ডাক পাইনি আমি। কিন্তু আমি যখন পুনে ওয়ারিয়র্সে ছিলাম, আমি অনেক বেশি উপভোগ করেছি। আমি অনেক কিছুই শিখেছি।’

তামিমের মুখে এমন ঘটনা শুনে সান্তনা দেন রোহিত।

‘আইপিএল এমনই। যদি কিছু ঘটে থাকে, তবে অনেক কিছুর উপর নির্ভর করে। বছরে ১০ মাসের মধ্যে আমরা একে অপরের প্রতিপক্ষ থাকি। কিন্তু আইপিএলের দু’মাস, আমরা কাছাকাছি আসি, নিজেদের মধ্যে শেয়ার করি, সর্ম্পক তৈরি করি এবং একে অপরকে জানতে পারি।’

আইপিএলের সবচেয়ে সফল দল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন রোহিত শর্মা। মুম্বাইয়ের সাফল্যের পেছনের ঘটনা তুলে ধরেন রোহিত।

তিনি বলেন, ‘মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স অনেক বেশি পেশাদার দল। আইপিএল হয় দু’মাস, কিন্তু মুম্বাইয়ের কর্মকর্তারা দলের শক্তি ও দুর্বলতা নিয়ে সারা বছর কাজ করেন। তৃণমূল স্তর থেকে খেলোয়াড় বাছাই করে তারা এবং এটি নিশ্চিত করে যে, সিনিয়র দলের সাথে সারা বছর তারা অনুশীলন করতে পারে।’

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *