ছবি: সানরাইজ হায়দ্রাবাদ -দিল্লি ক্যাপিটালস।

রশিদের ঘূর্ণিতে প্রথম জয়ের স্বাদ পেলো হায়দ্রাবাদ

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগের (আইপিএল ) ১৩ তম আসরের ১১ তম ম্যাচে রশিদের ঘূর্ণিতে প্রথম জয়ের স্বাদ নিলো সানরাইজ হায়দ্রাবাদ। দিল্লি ক্যাপিটালসের প্রথম হার এটি।

আজ মঙ্গলবার আবুধাবি আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হয় সানরাইজ হায়দ্রাবাদ ও দিল্লি ক্যাপিটালস। দুটি ম্যাচ খেলে দুটিতেই জয় পায় দিল্লি। বিপরীতে হায়দ্রাবাদ বিগত দুটি ম্যাচের দুটিতেই হেরেছে।

টসে জিতে দিল্লি ক্যাপিটালসের অধিনায়ক শ্রেয়াস আয়ার ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান সানরাইজ হায়দ্রাবাদের অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নারকে। শিশিরের কারণে টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন দিল্লি অধিনায়ক শ্রেয়াস আয়ার।

ব্যাটিংয়ে নেমে দুই ওপেনার জস বাটলার ও ডেভিড ওয়ার্নার করেন ৭৭ রান। ৩৩ বলে ৪৫ রানের একটি ঝকঝকে ইনিংস খেলেন তিনি। দুই নম্বরে ব্যাট করতে নামা মনেশ পাণ্ডে ৩ রান করে মিশরার বলে ক্যাচ আউট হন । হায়দ্রাবাদের সংগ্রহ তখন ২ উইকেটে ৯২ রান।

এরপর দীর্ঘ সময়ের জন্য ক্রিজে থাকেন জনি বেয়ারস্টো ও কেন উইলিয়ামসন। এই দুইজন ৫২ রানের পার্টনারশিপ গড়েছিল। ১৭.৫ তম ওভারে বেয়ারস্টো রাবাদার বলে ক্যাচ আউট হলে এই জুটি ভাঙ্গে। ৪৮ বলে ৫৩ রান করেন ইংলিশ ব্যাটসম্যান জনি বেয়ারস্টো।

এরপর কাশ্মীরি খেলোয়াড় আব্দুল সামাদকে নিয়ে দলকে এগিয়ে নিয়ে যান কেন উইলিয়ামসন। কিন্তু ১৯.৪ তম ওভারে রাবাদার বলে মিডউইকেটে প্যাটেলের তালু বন্দি হন উইলিয়ামসন। আউট হবার আগে ২৬ বলে ৪১ রানের ঝকঝকে ইনিংস খেলেন তিনি।

১২ রানে অপরাজিত থাকেন সামাদ। ২০ ওভার শেষে সানরাইজ হায়দ্রাবাদের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৪ উইকেটে ১৬২ রান।

দিল্লি ক্যাপিটালসের হয়ে ২ টি করে উইকেট নেন কাগিসো রাবাদা ও অমিত মিশরা।

প্রতিপক্ষের ১৬৩ রানের জবাবে খেলতে নেমে শুরুতেই বিপদে পরে যায় দিল্লি। প্রথম ওভারে আউট হয়ে যান পৃথিব স্ব। এরপর ৭.২ তম ওভারে রশিদের ঘূর্ণিতে আউট হন অধিনায়ক শ্রেয়াস আয়ার। ২১ বলে ১৭ রান করেন তিনি।

দলের হয়ে শিখর ধাওয়ান বেশ কিছু সময় ক্রিজে ছিলেন। কিন্তু ৩১ বলে ৩৪ রানে রশিদের শিকার হন তিনি।

এরপর দলের হয়ে কিছুটা প্রতিরোধ গড়ে তোলার চেষ্টা করেছিলেন পান্ট। কিন্তু রশিদের ঘূর্ণিতে তিনিও আউট হয়ে যান। আউট হবার আগে তার সংগ্রহ ছিল ২৭ বলে ৩২ রান। শেষ পর্যন্ত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৪৭ রানে থামে দিল্লি। আর চলতি আইপিএলে প্রথম জয়ের স্বাদ নেয় হায়দ্রাবাদ।

হায়দ্রাবাদের হয়ে ৩টি উইকেট নেন আফগান লেগ স্পিনার রশিদ খান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

সানরাইজ হায়দ্রাবাদ-১৬২/৪ ( ওভার-২০ , রান রেট -৮.১০)
ব্যাটিং :
বেয়ারস্টো-৫৩  (৪৮ বল , স্ট্রাইক রেট-১১০.৪১)
ওয়ার্নার -৪৫  ( ৩৩ বল , স্ট্রাইক রেট-১৩৬.৩৬)
উইলিয়ামসন-৪১  (২৬ বল , স্ট্রাইক রেট-১৫৭.৬৯ )

বোলিং :
রাবাদা -৪-০-২১-২
মিসরা -৪-০-৩৫-২

দিল্লি ক্যাপিটালস ১৪৭/৭  ( ওভার-২০ , রান রেট –৭.৩৫)
ব্যাটিং :
ধাওয়ান -৩৪ ( ৩১ বল , স্ট্রাইক রেট- ১০৯.৬৭)
পান্ট- ৩২ ( ২৭ বল , স্ট্রাইক রেট-১১৮.৫১)
হেটমায়ার -২১  (১২  বল , স্ট্রাইক রেট-১৭৫.০০)

বোলিং :
রাশিদ- ৪-০-১৪-৩
ভুবনেশ্বর -৪-০-২৫-২

টস:দিল্লি ক্যাপিটালস , ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত।
ফলাফল: সানরাইজ হায়দ্রাবাদ ১৫ রানে জয়ী। 
ম্যাচ সেরা : রশিদ খান ( সানরাইজ হায়দ্রাবাদ )
গেম চেঞ্জার :জনি বেয়ারস্টো ( সানরাইজ হায়দ্রাবাদ )
বেস্ট স্ট্রাইক রেট :সিমরন হেটমায়র (দিল্লি ক্যাপিটালস)
মোস্ট সিক্সেস :ঋষভ পান্থ (দিল্লি ক্যাপিটালস)
পাওয়ার প্লে প্লেয়ার : ডেভিড ওয়ার্নার ( সানরাইজ হায়দ্রাবাদ )

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *