শ্রীলংকা ব্যাটিং অ্যাকশন ,ছবিঃটুইটার।

শ্রীলংকার কাছে সিরিজ হারলো এক নম্বর দল পাকিস্তান

লাহোর, ৮ অক্টোবর ২০১৯  : দীর্ঘদিন ধরেই টি-২০ ক্রিকেটে এক নম্বর দল পাকিস্তান। ছোট ফরম্যাটের সেরা দল হয়েও এক ম্যাচ বাকী থাকতেই নিজ মাঠে শ্রীলংকার কাছে টি-২০ সিরিজ হারলো পাকিস্তান। গতকাল সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে শ্রীলংকার কাছে ৩৫ রানে হারে সরফরাজের দল। ফলে তিন ম্যাচের সিরিজ জয়ের পাশাপাশি ২-০ ব্যবধানে এগিয়েও গেল সফরকারী শ্রীলংকা। ওয়ানডে সিরিজ হারলেও, দলের সেরা তারকাদের ছাড়া টি-২০ সিরিজ ঠিকই জিতে নিলো লংকানরা। নিরাপত্তার কারনে পাকিস্তান সফরে আসেননি দলের নিয়মিত অন্তত ১০জন খেলোয়াড়।

লাহোরে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং বেছে নেয় শ্রীলংকা। আগের ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করেই ৬৪ রানে জয় পেয়েছিলো তারা। সে কারণেই প্রথমে ব্যাট করার পরিকল্পনা নির্ধারন করে লংকানরা। কিন্তু শুরুটা ভালো হয়নি তাদের। দলীয় ১৬ রানেই বিদায় নেন মারমুখী মেজাজে শুরু করা দানুস্কা গুনাতিলাকা। ৩টি চারে ১০ বলে ১৫ রান করেন তিনি। আরেক ওপেনার আবিস্কা ফার্নান্দোও ব্যর্থতার পরিচয় দেন। ৮ রানের বেশি করতে পারেননি ফার্নান্দো। ফলে ৫ ওভারে ৪১ রানের মধ্যে দুই ওপেনারকে হারায় শ্রীলংকা।

এরপর দলের হাল ধরেন ভানুকা রাজাপাকসে ও শেহান জয়সুরিয়া। মারমুখী মেজাজেই খেলতে থাকেন তারা। ১২তম ওভারের প্রথম বলে ১শ রান পেয়ে যায় শ্রীলংকা। এই জুটি দলের স্কোর বড় করছিলেন। কিন্তু রান আউটের ফাঁেদ পড়ে বিচ্ছিন্ন হন রাজাপাকসে ও জয়সুরিয়া। ৪টি চারে ২৮ বলে ৩৪ রান করে ফিরেন জয়সুরিয়া। তৃতীয় উইকেটে ৬২ বল মোকাবেলা করে ৯৪ রান দলকে উপহার দেন রাজাপাকসে ও জয়সুরিয়া।

কিছুক্ষণ ফিরে যান রাজাপাকসেও। আউট হবার আগে টি-২০ ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ম্যাচেই প্রথম হাফ-সেঞ্চুরির স্বাদ নেন তিনি।

৪টি চার ও ৬টি ছক্কায় ৪৮ বলে ৭৭ রান করেন রাজাপাকসে। ১৬তম ওভারের প্রথম বলে দলীয় ১৪২ রানে আউট হন রাজাপাকসে। এরপর দলকে বড় সংগ্রহ এনে দেন অধিনায়ক দাসুন শানাকা। মাত্র ১৫ বলে অপরাজিত ২৭ রান করেন তিনি।

তার ইনিংসে ৩টি চার ও ১টি ছক্কা ছিলো। শ্রীলংকা পায় ২০ ওভারে ৬ উইকেটে ১৮২ রান। পাকিস্তানের ইমাদ ওয়াসিম-ওয়াহাব রিয়াজ-শাদাব খান ১টি করে উইকেট নেন।

সিরিজ বাঁচাতে জয়ের জন্য ১৮৩ রান প্রয়োজন পড়ে পাকিস্তানের। কিন্তু জবাব দিতে নেমে শ্রীলংকার বোলারদের তোপের মুখে পড়ে তারা। তাই স্কোর বোর্ডে ৫২ রান উঠতেই ৫ উইকেট হারায় পাকিস্তান। বাবর আজম ৩, ফখর জামান ৬, আহমেদ শেহজাদ ১৩, অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ ২৬ ও উমর আকমল শুন্য রান করেন। পাকিস্তান ইনিংসের অষ্টম ওভারে তিন উইকেট নেন হাসারাঙ্গা ডি সিলভা। নিজের দ্বিতীয় ওভারের তৃতীয়, চতুর্থ ও ষষ্ঠ বলে যথাক্রমে শেহজাদ-আকমল-সরফরাজকে আউট করেন ডি সিলভা।

দ্রুত ৫ উইকেট হারিয়ে লড়াই থেকে ছিটকে পড়ে পাকিস্তান। এ অবস্থায় দলকে খেলায় ফেরানোর চেষ্টা করেন ওয়াসিম ও আসিফ আলি। দ্রুততার সাথে রান তুলে দারুন এক জুটি গড়ে তুলেন তারা। ৪৭ বলে ৭৫ রান যোগ করেন তারা। কিন্তু তারপরও পাকিস্তানের জয়ের সমীকরনটা কঠিনই ছিলো। ২৯ বলে ৮টি চারে ৪৭ রান করা ওয়াসিমকে শিকার করে শ্রীলংকাকে গুরুত্বপূর্ণ ব্রেক-থ্রু এনে দেন উসুরু উদানা।

দলীয় ১২৭ রানে ষষ্ঠ ব্যাটসম্যান হিসেবে ওয়াসিমের বিদায়ের পর বেশিক্ষণ টিকেনি পাকিস্তানের ইনিংস। এক ওভার বাকী থাকতেই ১৪৭ রানে গুটিয়ে সিরিজ হারে পাকিস্তান। ২৭ বলে ২৯ রান করেন আসিফ। শ্রীলংকার নুয়ান প্রদীপ ৪টি ও ডি সিলভা ৩টি উইকেট নেন। ম্যাচ সেরা হয়েছেন শ্রীলংকার রাজাপাকসে।

আগামীকাল একই ভেন্যুতে হবে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টি-২০।

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *