ব্যাটিং লিজেন্ড জাভেদ মিঁয়াদাদ

সাবেক খেলোয়াড়দের সাহায্য নিতে পিসিবির প্রতি পরামর্শ মিঁয়াদাদের

ইসলামাবাদ, ২১ অক্টোবর, ২০১৯  : পাকিস্তান দলের দুর্দশা কাটাতে ওয়াসিম আকরাম, শোয়েব মোহাম্মদ এবং সাদিক মোহাম্মদদের মত সাবেক খেলোয়াড়দের সাহায্য নিতে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) প্রতি পরামর্শ দিয়েছেন দেশটির সাবেক ব্যাটিং লিজেন্ড জাভেদ মিঁয়াদাদ।

পাকিস্তানী একটি বার্তা সংস্থাকে ‘বড়ে মিয়া’ বলেন, ‘আমি মনে করি সব ফর্মেটের প্রধান কোচ ও প্রধান নির্বাচকের দ্বৈত দায়িত্ব দিয়ে বোর্ড মিসবাহ উল হকের উপড় অতিরিক্ত চাপে ফেলেছে।’

আগামী টি-২০ বিশ্বকাপকে সামনে রেখে দেশের বিভিন্ন স্টেডিয়ামে ভিন্ন ধর্মী পিচ তৈরী করতেও পিসিবিকে পরামর্শ দেন মিঁয়াদাদ।

তিনি বলেন,‘এমন ধরনের পিচ হওয়া উচিত যেখানে ব্যাটসম্যান ও বোলাররা সমান সুযোগ পাবে এবং খেলার মানোন্নয়নে সব নিয়ম নীতি বজায়ে রাখা উচিত।’

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে আসন্ন সিরিজ সম্পর্কে মিঁয়াদাদ বলেন, এ সিরিজের জন্য দল নির্বাচনের একমাত্র পথ হওয়া উচিত কেবলমাত্র মেধা ও শাররিীক ফিটনেস।

আগামী মাসে শুরু হওয়া সফরে অস্ট্রেলিযার বিপক্ষে দুই টেস্টে ও তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজ খেলবে পাকিস্তান দল।

সম্প্রতি টি-২০ দলের অধিনায়কত্ব পেয়েছেন বাবর আজম। তবে লাহোরে জন্ম নেয়া এ ব্যাটসম্যানকে নেতৃত্ব দেয়া আগে তাকে গড়ে তোলার জন্য ইতোপূর্বে সুপারিশ করেছিলেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক ও কোচ মিঁয়াদাদ।

তিনি বলেন, ‘এই মুহূর্তে টি-২০ ক্রিকেটে র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষ ব্যাটসম্যান বাবার। তবে তার বয়স খুব বেশি নয়, অভিজ্ঞতাও কম তাই সর্বোচ্চ পর্যায়ে জাতীয় দলের নেতৃত্ব দিতে গিয়ে তার পারফরমেন্সে প্রভাব পড়তে পারে, খারাপ হতে পারে’।

আগামী বছর অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠেয় বিশ্বকাপ পর্যন্ত বাবরকে টি-২০ দলের অধিনায়ক নির্বাচন করা হয়েছে। চলমান বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপে ২০১৯-২০ মৌসুমের জন্য লংগার ভার্সনে অধিনায়ক করা হয়েছে আজহার আলীকে।

তিনি বলেন, ‘আগামী মাসে অস্ট্রেলিয়া সিরিজে সরফরাজকেই অধিনায়ক রাখা উচিত ছিল এবং বাবরকে তার সহকারীর দায়িত্ব দেয়া যেতে পারত।’

মিঁয়াদাদ আরো বলেন, ‘যদিও ব্যাটসম্যান হিসেবে সরফরাজ ভাল করছিলো না। তবে একজন উইকেটরক্ষক হিসেবে সে খুবই ভাল করছিল এবং ছন্দে ফিরতে বোর্ডের উচিত ছিল তাকে আরো সময় দেয়া

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *