রাসলে ডোমিঙ্গ ,ছবি :সংগৃহিত।

সামর্থ্য অনুযায়ী খেলতে পারলে ভারতকে হারানো সম্ভব : ডোমিঙ্গো

নাগপুর, ৯ নভেম্বর, ২০১৯  : ভারতের বিপক্ষে তিন ম্যাচ সিরিজের তৃতীয় ও শেষটি জয়ের ব্যাপারে আশাবাদি বাংলাদেশের কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো। স্বাগতিক ভারতের বিপক্ষে অঘোষিত ফাইনালের আগে এমন মন্তব্য করেন বাংলাদেশ কোচ দক্ষিণ আফ্রিকার ডোমিঙ্গো। আগামীকাল নাগপুরের বিদর্ভ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়ামে ভারতের বিপক্ষে সিরিজের শেষ ম্যাচ খেলতে নামবে বাংলাদেশ। দুই ম্যাচ শেষে সিরিজে ১-১ সমতা বিরাজ করছে। শেষ ম্যাচের বিজয়ী দল সিরিজ জিতে নিবে।

শেষ ম্যাচে দলের খেলোয়াড়রা নিজেদের সেরাটা দিতে পারলে প্রতিবেশী দেশ ভারতের বিপক্ষে জয় অসম্ভব কিছু নয় মনে করছেন ডোমিঙ্গো। ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে তিনি আজ বলেন, ‘ছেলেরা এখন পর্যন্ত যা খেলেছে তাতে আমি গর্বিত। প্রথম ম্যাচে দারুণ পারফরমেন্স করেছে। দ্বিতীয় ম্যাচে ব্যাটিং-এ আমরা ভালো অবস্থায় ছিলাম। কিন্তু পরবর্তীতে কিছু ভুল করেছি।

কিন্তু যদি আমরা ভুলগুলো শুধরে নিতে পারি এবং নিজেদের সামর্থ্য অনুযায়ী খেলতে পারি, তবে যেকোন দিন ভারতকে হারাতে পারি।’

দ্বিতীয় ম্যাচে ভালো শুরুর পরও পথ হারায় বাংলাদেশ। ভারতের অনভিজ্ঞ বোলিং লাইনআপকে সামলানোর টিপসও দিলেন ডোমিঙ্গো। তিনি বলেন, ব্যাটসম্যানরা নিজেদের ভুলগুলো শুধরে নিতে পারে তবেই ভারতের বোলিংকে চাপে ফেলা সম্ভব হবে।

ডোমিঙ্গো বলেন, ‘এটি কোন গোপন বিষয় নয়, তাদের বোলিং অ্যাটাক অনভিজ্ঞ । যদি আমরা ভালো ব্যাট করতে পারি, নিজেদের পরিকল্পনাগুলো কাজে লাগাতে পারি, তবেই তাদের বোলিংকে চাপে ফেলতে পারবো।’

খেলোয়াড়দের ধর্মঘট এবং এরপর সাকিব আল হাসানের উপড় আইসিসি’র নিষেধাজ্ঞায় সিরিজ শুরুর আগে বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা মানসিকভাবে চাপে ছিলো, তা লক্ষ্য করেছেন ডোমিঙ্গো। এরপরও জয় দিয়ে সিরিজ শুরু করতে পারে মাহমুদুল্লাহ’র দল। ঐ জয়ই বলে দেয়, ক্রিকেট আবারো সঠিক পথে ফিরে আসে।

ডোমিঙ্গো বলেন, ‘সফরের কয়েক সপ্তাহ আগে কঠিন সময় ছিলো। কিন্তু খেলোয়াড়রা অনেক বেশি কৃতিত্বের দাবীদার। গেল ১০ দিন তারা যে শক্তি ও ইচ্ছা দেখিয়েছে তা দুর্দান্ত। তারা নতুন কিছু করতে চেষ্টা করেছে। বিদেশের মাটিতে তারা শক্তিশালী দলের বিপক্ষে খেলছে। দু’সপ্তাহ আগে আমাদের বলেছিলো, আমরা নাগপুরে আসছি তা কেউ বিশ্বাস করতো না। তাই আমরা এখানে আসতে পেরে খুশী। আগামীকাল আমাদের ভালো সুযোগ রয়েছে। ছেলেরা এজন্য এক্সাইটেড হয়ে আছে। দিন শেষে ভারতই বিশ্বের সেরা দল। কেউই বাংলাদেশের সুযোগ দেখছে না। কিন্তু আমরা মনে করি, যদি আমরা আমাদের সেরাটা দিতে পারি, তবে আমাদের সুযোগ থাকছে।’

দ্বিতীয় ম্যাচে বড় ব্যবধানে হারের পর মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়েনি বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা, এটিও নিশ্চিত করেছেন ডোমিঙ্গো। খেলোয়াড়রা সঠিক পথেই আছে বলে জানান তিনি, ‘টপ-অর্ডারে ভারতের অনেক বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান রয়েছে।

আমাদের স্পিনাররা প্রথম ম্যাচে ভালো করেছে, আগের ম্যাচে পারেনি, তার মানে এই নয় সবকিছু বদলাতে হবে।’

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *