পাকিস্তান -অস্ট্রেলিয়া টেস্ট ,ছবি: টুইটার।

স্টার্কের বিধ্বংসী বোলিংয়ে প্রথম দিনই অলআউট পাকিস্তান

ব্রিজবন, ২১ নভেম্বর, ২০১৯  : অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ব্রিজবেন টেস্টের প্রথম দিনই ২৪০ রানে অলআউট হয়েছে সফরকারী পাকিস্তান। ৮৬ দশমিক ২ ওভার ব্যাট করে অল আউট হয় উপমহাদে,ের দলটি। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭৬ রান করেন আসাদ শফিক। অস্ট্রেলিয়ার বাঁ-হাতি পেসার মিচেল স্টার্ক ৫২ রানে ৪ উইকেট নেন।

ব্রিজবেনে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্বান্ত নেয় পাকিস্তান। দলকে ভালো সূচনা এনে দেন দুই ওপেনার শান মাসুদ ও অধিনায়ক আজহার আলি। সর্তকতার সাথে খেলে ৩৩ ওভারে ৭৫ রানের জুটি গড়েন তারা। ৩টি চারে ৯৭ বলে ২৭ রান করা মাসুদকে বিদায় দিয়ে পাকিস্তানের উদ্বোধনী জুটি ভাঙ্গেন অস্ট্রেলিয়ার প্যাট কামিন্স। পরের ওভারে আজহারকে বিদায় দেন অস্ট্রেলিয়ার আরেক পেসার জশ হ্যাজেলউড। ৫টি চারে ১০৪ বলে ৩৯ রান করেন আজহার।

দলীয় ৭৫ রানে প্রথম উইকেট পতনের পর মিনি ধস নামে পাকিস্তানের ব্যাটিং লাইন-আপে। ৯৪ রানের মধ্যে পাঁচ উইকেট হারিয়ে বসে তারা। দুই ওপেনারের পর দ্রæতই প্যাভিলিয়নে ফিরেন হারিস সোহেল-বাবর আজম-ইফতেখার আহমেদ। সোহেল-বাবর ১ রান করে ও ইফতেখার ৭ রান করে আউট হন। এই তিনটি উইকেট ভাগাভাগি করে নিয়েছেন স্টার্ক-হ্যাজেলউড-নাথান লিঁও।

১৯ রানের ব্যবধানে প্রথম ৫ উইকেট হারানোর পর দলকে দারুনভাবে লড়াইয়ে ফেরান শফিক। তার সাথে সঙ্গ মিলিয়েছেন উইকেটরক্ষক মোহাম্মদ রিজওয়ান ও স্পিনার ইয়াসির শাহ। ষষ্ঠ উইকেটে রিজওয়ানের সাথে ৪৯ ও সপ্তম উইকেটে ইয়াসিরের সাথে ৮৪ রান যোগ করেন শফিক। দলকে ভালো অবস্থায় নিতে গিয়ে টেস্ট ক্যারিয়ারের ২৪তম হাফ-সেঞ্চুরির দেখা পান শফিক।

দলীয় ২২৭ রানে ইয়াসিরকে ফিরিয়ে দিয়ে পাকিস্তানকে দ্রæত গুটিয়ে দেয়া পথ তৈরি করেন স্টার্ক। শেষ পর্যন্ত তাই ঘটেছে। ১৩ রানে বাকী ৩ উইকেট হারিয়ে ২৪০ রানে গুটিয়ে যায় পাকিস্তান। এরমধ্যে শফিকের উইকেটও ছিলো। তবে শফিককে আউট করেন কামিন্স। ৭টি চারে ১৩৪ বলে ৭৬ রান করেন শফিক। রিজওয়ান ৩৭ ও ইয়াসির ২৬ রান করেন। অস্ট্রেলিয়ার মফল বোলার স্টার্ক ৫২ রানে ৪ উইকেট নেন। কামিন্স ৩টি ও হ্যাজেলউড ২টি উইকেট নেন।

এই টেস্ট দিয়ে ১৬ বছর ২৭৯ দিনে অভিষেক ঘটলো পাকিস্তানে ডান-হাতি পেসার নাসিম শাহ’র। বিশ্বের নবম সর্বকনিষ্ঠ টেস্ট ক্রিকেটার হিসেবে অভিষেক হলো তার। আর পেসারদের মধ্যে চতুর্থ সর্বকনিষ্ঠ। এই তালিকায় শীর্ষ দশজনের মধ্যে বাংলাদেশের তিন ক্রিকেটার- মোহাম্মদ শরীফ, তালহা জুবায়ের ও এনামুল হক জুনিয়রও আছেন। তালিকার শীর্ষে রয়েছেন পাকিস্তানের হাসান রাজা। ১৯৯৬ সালে ফয়সালাবাদে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ১৪ বছর ২২৭ দিনে টেস্ট অভিষেক হয়েছিলো রাজার।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

পাকিস্তান : ২৪০/১০, ৮৬.২ ওভার
শফিক -৭৬
রিজওয়ান -৩৭
স্টার্ক- ৪/৫২

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *