মিচেল স্টার্ক ,ছবি:সংগৃহীত।

স্বপ্নের গোলাপী বলের টেস্টে ফেবারিট অস্ট্রেলিয়া

এডিলেড, ২৭ নভেম্বর, ২০১৯  : প্রথম টেস্টে বড় জয় পেলেও চলতি সপ্তাহে শুরু হওয়া দ্বিতীয় ম্যাচে সফরকারী পাকিস্তানের বিপক্ষে আত্মতুষ্টিতে না ভুগে ফেবারিট হিসেবে মাঠে নামা অস্ট্রেলিয়ার মতে দিবা-রাত্রির টেস্ট ভিন্ন ধর্মী।

গত সপ্তাহে ব্রিসবেনে গাব্বাতে প্রথম টেস্টে মাত্র চার দিনের মধ্যেই ইনিংস ও ৫ রানে জয়ী হয়ে দুই ম্যাচ সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে আছে স্বাগতিক দল।

তবে আগামী শুক্রবার এডিলেড ওভালে শুরু হওয়া গোলাপী বলের দিবা-রাত্রির টেস্ট ম্যাচটিকে ভিন্নভাবে দেখছেন অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক টিম পাইন। তার মতে পিচ এবং আউট ফিল্ডে ঘাস থাকায় দ্বিতীয় ম্যাচটি হবে ভিন্ন কন্ডিশনে।

পাইন বলেন, ‘অবশ্যই দিবা-রাত্রির এ ম্যাচে কৌশল কিছুটা ভিন্ন হবে। আমরা অপেক্ষা করব উইকেট দেখব এখানে বল কেমন আচরণ করে। সব কিছু বিবেচনা করেই আমরা পুরো ম্যাচের কৌশল ঠিক করব।’

তিনি আরো বলেন, ‘সকলেই এ ম্যাচটির অপেক্ষায় আছে। তবে আমরা জানি এটা সম্পূর্ণ ভিন্ন ধর্মী একটি ম্যাচ।’

নি:সন্দেহে অস্ট্রেলিয়া ফেবারিট। চার বছর আগে গোলাপী বলের দিবা-রাত্রির টেস্ট শুরুর পর এ পর্যন্ত পাঁচ ম্যাচের সবক’টিতেই জয়ী হয়েছে অসিরা। যার মধ্যে তিরটি ছিল এই এডিলেডে এবং তাদের ফাস্ট বোরার মিচেল স্টার্ক, জশ হ্যাচেলউড এবং প্যাট কামিন্স সকলেই ফ্লাড লাইটের অধীনে খুব ভাল করেছেন।

কামিন্স বলেছেন এডিলেড ওভালে রাত্রিকালীন সময়টা ছিল ‘একজন ফাস্ট বোলারের স্বপ্ন’।

অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট ওয়েবসাইটকে কামিন্স বলেন, ‘এডিলেডে সত্যিই আমাদের রেকর্ড খুব ভাল। এখানকার কন্ডিশন সম্পর্কে আমরা খুব ভাল জানি। আমার মনে হয় ব্রিসবেনের তুলনায় এখানের ম্যাচটি হবে কিছুটা ভিন্ন ধর্মী।’

তিনি আরো বলেন, ‘এমসিজি ও এসসিজির উইকেটে আমাদের সকলেরই কিছু অভিজ্ঞতা আছে। এখানের উইকেটে কিছুটা ঘাষ থাকবে। গোলাপি বল রাতের কিছুটা ভিন্ন আচরণ করবে- এটা একজন ফাস্ট বোলারের স্বপ্ন।’

এ ছাড়া অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে এ পর্যন্ত টানা ১৩ টেস্টে পরাজিত হয়েছে পাকিস্তান এবং টিম পাইনের দল ২-০ ব্যবধানে সিরিজ জিততে না পারলে সেটা হবে চরম হতাশার।

ঘরোয়া ক্রিকেটের একটি ম্যাচে খারাপ আচরণের কারণে গাব্বা টেস্টে নিষিদ্ধ থাকার পর এ টেস্টের দলে ফাস্ট বোলার জেমস প্যাটিনসনকে পাওয়া গেলেও ব্রিসবেনের একাদশ নিয়েই অস্ট্রেলিয়া মাঠে নামবে ধারনা করা হচ্ছে।

-কঠিনভাবে ঘুড়ে দাঁড়াবে-

ব্রিসবেনে দ্বিতীয় ইনিংসে ৩৩৫ রান করতে সক্ষম হওয়ায় সেখান থেকে পাকিস্তান ইতিবাচক অনেক কিছুই দেখছে। বাবর আজমের সেঞ্চুরি এবং মুহাম্মদ রিজওয়ানের ৯৫ রানের সুবাদে ব্রিসবেনে দ্বিতীয় ইনিংসে ৩৩৫ রান করতে সক্ষম হয় পাকিস্তানীরা।

সেখানে প্রথম ইনিংসে ব্যাটিং ব্যর্থতা এবং এরপর পাকিস্তানের তারুণ্য নির্ভর বোলিং আক্রমন অস্ট্রেলিয়ার টপ অর্ডারের বিপক্ষে দারুনভাবে ভ্যর্থ হয়েছে। যে কারণে অসিরা উদ্বোধনী জুটিতে ২২২ এবং দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ১২৯ রান তুলতে সক্ষম হয়েছিল।

অভিজ্ঞ পেসার মোহাম্মদ আব্বাসকে সেরা একাদশে না রেখে ১৬ বছর বয়সী নাসিম শাহকে অভিষিক্ত করে গাব্বাতে একটা জুয়া খেলেছে পাকিস্তান। এডিলেডে দলে ফিরতে পারেন আব্বাস। এছাড়াও ফিরতে পারেন ইমরান খানও।

নাসিমের পরিবর্তে দলে ফিরতে পারেন ১৯ বছর বয়সী মুসা খান।

পাকিস্তান শক্তভাবে ঘুড়ে দাঁড়াবে প্রত্যাশা করছেন অস্ট্রেলিয়ার সাবেক াধিনায়ক স্টিভ স্মিথ।

তিনি বলেন, ‘কখনোই কোন প্রতিপক্ষকে আপনি হাল্কাভাবে নিতে পারেন না।’

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *